২০১৮-এর মে - অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের ইতিহাসে এক কালো অধ্যায়। দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউনে টেস্ট ম্যাচ চলাকালীন টিভি ক্যামেরার সামনে ধরা পড়ে তখনকার অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ ও সহ-অধিনায়ক ডেভিড ও.য়ার্নারের উপস্থিতিতে বোলার ক্যামেরন ব্যানক্রফ্ট শিরীষ কাগজ দিয়ে ঘষে বল বিকৃতি ঘটাচ্ছেন। যার জেরে ব্যানক্রফ্টকে ৯ মাস ও স্মিথ -ওয়ার্নারকে একবছরের জন্য নির্বাসিত হতে হয়েছিল।

সেই সময় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া দাবি করেছিল, তারা দলে একটা নতুন ধরণের সংস্কৃতির আমদানি করতে চাইছেন। মাঠে স্লেজিং বা অসদ উপায় নিয়ে জেতার চেষ্টা আর করবে না অস্ট্রেলিয়া - এমন সব কথাই বলেছিল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। তারপর ক্যানবেরা নদী বেয়ে অনেক জল গড়িয়ে গিয়েছে। ক্রমশ অস্ট্রেলিয়া দলের পারফরম্যান্স লেখচিত্র নিম্নগামী হয়েছে।

বিশ্বকাপের আগ দিয়েই অবশ্য পর পর জিততে শুরু করেছিল অস্ট্রেলিয়া। চলতি বিশ্বকাপে দলে ফিরে এসেছেন স্মিথ ওয়ার্নারও। প্রথম ম্যাচে আফগানদের বিরুদ্ধে ওয়ার্নার অপরাজিত ৮৯ করেন, আবার পরের ম্যাচে ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে অর্ধশতরান করে দলের পতন রোধ করেছেন স্মিথ। কিন্তু তাঁরা ফিরতেই তৃতীয় ম্যাচে ভারতের বিরুদ্ধে যেন সেই বল বিকৃতি ঘটনারই 'দেজাভু' দেখা গেল।

ভারতের ইনিংস চলাকালীন অজি লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পাকে দেখা যায়, হাতে কিছু একটা নিয়ে, তাই দিয়ে বলচটিকে ঘসতে। এরপর দ্রুতই তিনি তা পকেটে পুড়ে ফেলেন। অতি অল্প সময়ের জন্য টেলিভিশনের পর্দায় ওই দৃশ্য দেখা গেলেও, তারমধ্যেই অনেক দর্শকেরই তা নজর কেড়েছে। আর তারপরই ফের অজিরা শিরীষ কাগজ দিয়ে বলের পালিশ তুলছে কি না, তাই নিয়ে সন্দেহ দেখা দিয়েছে। কয়েকজন দর্শক ওই দৃশ্য টিভি থেকে ক্যামেরা বন্দীও করে নিয়েছেন। জাম্পার পকেটে থাকা বস্তুটি ঠিক কী, তা স্পষ্ট না হলেও আগামী কয়েকদিন এই নিয়ে যে চর্চা হতে চলেছে তা আগাম বলে দেওয়াই যায়।