ভারত-ইংল্য়ান্ড ম্য়াচের আগেই, ভারতীয় দল পাকিস্তানের সেমিফাইনালে ওঠা আটকাতে ইচ্ছা করে ম্য়াচ ছেড়ে দেবে - এরকম চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করেছিলেন প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার বসিত আলি। আর ভারত হেরে যাওয়ার পর আরও একবার কাদা চেটানোর চেষ্টা করে বলেছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছিল পিকনিক করতে। এরপরই তাকে রীতিমতো ধুয়ে দিলেন কিংবদন্তি ভারতীয় অফস্পিনার হরভজন সিং।

এক সর্বভারতীয় পত্রিকায় এই বিষয়ে প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে ভাজ্জি সাফ জানান, বসিত ভিত্তিহীন কথা বলছেন। এমনকী বসিত আলিকে 'হাবা', 'গাঁজা টানেন' বলতেও ছাড়েননি। ম্যাচ গড়াপেটা করে বসিত আলিরাই ক্রিকেট খেলেছেন বলেও অভিয়োগ করেন ভাজ্জি।

তবে বসিত শুধু চলতি বিশ্বকাপে ম্যাচ গড়াপেটার কথা বলেই ক্ষান্ত হননি, ঐতিহাসিক ভাবেই ইচ্ছে করে ম্য়াচ ছাড়া হয় বলে অভিযোগ করেছিলেন। তাঁর দাবি ছিল ১৯৯২ সালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে নিউজিল্যান্ড, নিজেদের মাঠে খেলার সুবিধা পাওয়ার জন্য ইচ্ছে করে ম্যাচ হেরেছিল। হরভজন বলেছেন, ইমরান খানের দলের বিশ্বকাপ জয়েও বসিত আলি ম্য়াচ ফিক্সিং-এর কালি ছেটাচ্ছেন। তাই পাক প্রধানমন্ত্রীর জরুরি ভিত্তিতে বসিতকেই 'ফিক্স' করা বা সুস্থ করে তোলা উচিত।

আরও পড়ুন - ঘোলা জলে মাছ ধরতে নেমেছিলেন, নিজেই পড়লেন ফাঁপড়ে! কড়া জবাব দিল ভারত

আরও পড়ুন - ধোনিকে নকলের চেষ্টা, ফের হাসির খোরাক হলেন সরফরাজ - দেখুন ভিডিও

আরও পড়ুন - হার্দিককে সেরা বানাতে চান - ভারতে কি কাজ খুঁজছেন প্রাক্তন পাক অলরাউন্ডার

১৯৯৩ থেকে ১৯৯৬ মাত্র ৩ বছর পাকিস্তান জাতীয় দলের হয়ে খেলেছিলেন বসিত আলি। জাতীয় দলের জার্সিতে খেলেছেন সাকুল্যে ১৯টি টেস্ট ও ৫০টি একদিনের ম্যাচ। ফলে পাকিস্তানের ক্রিকেট সমর্থকদেরই সেভাবে মনে নেই। তাঁর এইসব উদ্ভট অভিযোগ শুধুই সস্তা জনপ্রিয়তা কুড়ানোর চেষ্টা ছাড়া কিছুই না বলে মনে করা হচ্ছে। নিজেকে প্রাসঙ্গিক করে তোলার লক্ষ্যেই এই সব বাজার গরম করা ফাঁকা আওয়াজ দিচ্ছেন তিনি।