রবিবার বিশ্বকাপে ইংল্যান্ড ম্যাচে ব্যাটিং-এ ইচ্ছাশক্তির অভাব ছিল বলে প্রবল সমালোচনা হচ্ছে মহেন্দ্র সিং ধোনির। কিন্তু উইকেটরক্ষক হিসেবে তাঁর দক্ষতায় কিন্তু এতটুকু মরচে পড়েনি। বরং ফারুক ইঞ্জিনিয়ারদের মতো প্রাক্তনরা মনে করেন প্রথম দিকের ধোনির থেকে বর্তমান সময়ে উইকেটকিপিং-এ তিনি আরও দক্ষ হয়ে উঠেছেন। সবচেয়ে বড় কথা উইকেট কিপিং-এর অনেক নতুন দিকের তিনি জন্ম দিয়েছেন আধুনিক ক্রিকেটকে। যা বর্তমান সময়ে অন্যান্য দেশের ক্রিকেটার উইকেটরক্ষকরা নকল করার চেষ্টা করে থাকেন।

সম্প্রতি এমনই এক প্রচেষ্টা করতে গিয়ে ফের হাসির পাত্র হয়ে উঠলেন পাক অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। রান আউটের সময়ে ফিল্ডারের ছোড়া বল ধরে উইকেটের দিকে ঘুরে বল উইকেটে লাগাতে গেলে যে সময়টা লাগে সেটুকুও ছেটে ফেলেছেন ধোনি। এইসব ক্ষেত্রে তিনি উইকেটের দিকে পিছন ঘুরেই বল উইকেটে মেরে থাকেন। এভাবে তাঁর হাত ধরে বহু গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে ভারত সাফল্য পেয়েছে।

বিশ্বকাপের আফগানিস্তান ম্য়াচে এই কাজটাই করতে গিয়েছিলেন পাক অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। আর তা করতে গিয়ে চুড়ান্ত ব্যর্থ হলেন তিনি। আফগানিস্তান ইনিংসের একেবারে শেষ বলে মহম্মদ আমিরের বল লং অনে ঠেলে রান নিতে দৌড়েছিলেন মুজিবুর রহমান। দ্বিতীয় রানের জন্য স্ট্রাইকার এন্ডে ফিরতে তিনি বেশ খানিকটা সময় নেন।

আরও পড়ুন - চলছে ভারত ম্যাচ, তার মধ্যেই সরফরাজের পেল্লাই হাই! কী করলেন ইমরান

আরও পড়ুন - ম্যাচের আগেই সরফরাজকে নিয়ে ফের হাসাহাসি! পাশে দাঁড়ালেন ভারতীয়রা

আরও পড়ুন - আশ্চর্য সমাপতন! এভাবে চললে এবারের বিশ্বকাপ জিতছে পাকিস্তান

রান আউট হতেই পারত। কিন্তু সংশ্লিষ্ট পাক ফিল্ডার বলটি অনেকটাই উইকেটের বাইরে ছোড়েন। ফলে সরফরাজ বলটি ধরে উইকেটে লাগানোর সময় পাননি। এখানেই ধোনিকে নকল করে উইকেটের দিকে না তাকয়েই বল উইকেট লক্ষ্য করে ছোড়েন তিনি। কিন্তু বল উইকেটে লাগা তো দূর, উইকেটে গা ঘেসেও গেল না।

উইকেটের কাছাকাছি কোনও ফিল্ডার না থাকায় বরং আফগানরা ওভার থ্রো-তে বাড়তি রানও পেয়ে যেতে পারতেন। কিন্তু মুজিবুর ক্রিজে ঢোকার সময় সরফরাজের সঙ্গে সংঘর্ষে পড়ে যান বলে সেই লজ্জার সম্মুখীন হতে হয়নি পাক অধিনায়ককে। এর আগে ভারত ম্যাচে মাঠে হাই  তোলার জন্য তাঁকে নিয়ে হাসাহাসি হয়েছিল।