ভুবনেশ্বর কুমার হয়তো এখন ভাবছেন কী কুক্ষণেই না চোটটা পেয়েছিলেন! তাঁর দলে ফেরার রাস্তা একেবারে পাকাপাকি বন্ধ করে দিলেন মহম্মদ শামি। একেবারে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে চলেছেন তিনি। চলতি বিশ্বকাপে তাঁর তৃতীয় ম্যাচেই একেবারে রেকর্ড গড়ে ফেললেন বাংলার পেসার। তাঁকে রোখাই যাচ্ছে না।

২০ বছর আগে এই এজবাস্টনে এক বঙ্গসন্তান সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের হাতে ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ স্বপ্নের জলাঞ্জলি ঘটেছিল। শামি বাংলায় না জন্মালেও, খেলেন বাংলার হয়েই, থাকেন কলকাতায়। আজ তাঁর হাতেই পাঁচ ইংরেজ ব্য়াটিং মহারথীর পতন ঘটল। এদিন তাঁর বোলিং পরিসংখ্যান ১০-১-৬৯-৫। রানটা একটু বেশি দিলেন শেষের দিকে। কিন্তু, শুরুতে একটি আসাধারণ স্পেল করেছিলেন, যেখানে ভাগ্য সুপ্রসন্ন থাকলে বেয়ারস্টোকে ফিরিয়ে দিতে পারতেন। পরে ইংরেজ ওপেনার শতরান করলেন। ওই উইকেটটি পেলে খেলাই ঘুরে যেতে পারত।

আরও পড়ুন - বোলিং-এর সচিন, তারপরেও বারবার বঞ্চিত শামি - ক্ষুব্ধ ভক্তকূল

আরও পড়ুন - মাঠে আগুন ছোটাচ্ছেন শামি, হাসিন বলছেন 'বেহায়া', 'নির্লজ্জ'

আরও পড়ুন - হ্যাটট্রিক-এর আগে মাহিভাই-এর পরামর্শেই কেটে গিয়েছিল দ্বিধা! কী এমন বলেছিলেন ধোনি

আফগানিস্তান ম্যাচে শেষ ওভারে হ্যাটট্রিক করেছিলেন, নিয়েছিলেন ৪ উইকেট। পরের ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্য়াচে মাত্র ১৬ রান দিয়ে নেন আরও ৪টি উইকেট। এদিনও ৫ উইকেট নিলেন। বিশ্বকাপে তিনি দ্বিতীয় বোলার, যিনি পর পর তিন ম্যাচে ৪ বা ৪-এর বেশি উইকেট পেলেন। এর আগে ২০১১ সালের বিশ্বকাপে এই কীর্তি করে দেখিয়েছিলেন শাহিদ আফ্রিদি। সামগ্রিকভাবে একদিনের ক্রিকেটের ইতিহাসেই এই রেকর্ড রয়েছে আর একজন মাত্র ভারতীয় ক্রিকেটারের। ১৯৮৮ সালে নরেন্দ্র হিরোয়ানি প্রথম এই কীর্তি গড়েছিলেন।  

একই সঙ্গে মাত্র ৩ ম্যাচ খেলেই চলতি বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারীদের দৌড়ে চলে এলেন মহম্মদ শামি। ১৩টি উইকেট নিয়ে তিনি আপতত তালিকায় ৬ নম্বরে আছেন। তবে প্রথম স্থানে থাকা লকি ফার্গুসনের সঙ্গে তাঁর মাত্র ৪ উইকেটের তফাত। শামির আগে থাকা প্রত্যেকেই কিন্তু ম্য়াচ খেলেছেন অন্তত ৭টি করে। এতেই শামির পরাক্রমটা বোঝা যাচ্ছে।

এদিকে প্রথম দুই ম্যাচে শামি মাঠে যত আগুন ঝড়িয়েছেন। ততই তাঁর বিরুদ্ধে কলকাতায় বসে বিষ ঢেলেছেন প্রাক্তন স্ত্রী হাসিন জাহান। আফগানিস্তান ম্য়াচের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় হাসিন একটি ভিডিও পোস্ট করে শামির বিরুদ্ধে অভিযোগনামা খুলে বসেছিলেন। ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে ম্যাচের পর আবার শামি কোন কোন মহিলার সঙ্গে টিকটক করতেন তাঁর ঝাঁপি খুলে দেন। এদিন শামির রেকর্ডের পর হাসিন কী বলেন সেটাই দেখার। একের পর এক দুরন্ত পারফরম্যান্সে শামি কিন্তু অসংখ্য ভারতীয় ভক্তের দিল জিতে নিয়েছেন।