বিজয় শঙ্কর চোট পাওয়ার পরও অভিজ্ঞ আম্বাতি রায়ডুকে সুযোগ না দিয়ে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে একেবারে আনকোরা মায়াঙ্ক আগরওয়ালকে সুযোগ দেওয়া নিয়ে বিতর্কটা সোমবারই মাথা চাড়া দিয়েছিল। এরপর মঙ্গলবার আম্বাতি রায়ডুর অবসরের পর এই নিয়ে বিতর্ক বড় আকার ধারণ করেছে। ক্রিকেট মহলের নিশানায় জাতীয় নির্বাচকরা। তাদের নির্বাচনের কোনও মাথা-মুন্ডু নেই বলা হচ্ছে।

কিন্তু, দলের সূত্রে জানা গিয়েছে এই নির্বাচনের পিছনে জাতীয় নির্বাচকদের কোনও ভূমিকা নেই। মায়াঙ্ককে চেয়েছিলেন রবি শাস্ত্রী-বিরাট কোহলি জুটিই। আর বিশ্বকাপ চলাকালীন, তাদের চাহিদা না মিটিয়ে সংঘাতের পথে যেতে চাননি নির্বাচকরাও। তাই টিম ম্য়ানেজমেন্ট চাইতেই রায়ডুর বদলে একটিও ওডিআই না খেলা মায়াঙ্ককে দলের সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন - আর অপেক্ষা নয়, বিদায় ক্রিকেট! চরম সিদ্ধান্তটা এবার নিয়েই ফেললেন

আরও পড়ুন - ফের চোট ধাক্কা, বিশ্বকাপ এবারের মতো শেষ থ্রিডি ক্রিকেটারের! বদলি হিসেবে উঠছে এক আনকোরা নাম

আরও পড়ুন - অঙ্ক কী কঠিন! কোন কোন অসম্ভব রাস্তায় পাকিস্তান সেমি-তে যেতে পারে

জানা গিয়েছে গত বছর ইংল্যান্ডে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্টইন্ডিজ এ দলের বিরুদ্ধে তাঁর দুর্দান্ত পারফরম্যান্সই চটিম ম্য়ানেজমেন্টকে প্রভাবিত করেছে। ৪টি ইনিংসে দুটি শতরান সহ ওই সিরিজে তিনি ২৮৭ রান করেছিলেন। লাঙ্কাশায়ার কাউন্টি দলের বিরুদ্ধে একটি গা ঘামানো ম্য়াচে করেছিলেন ১৫১. সেই টুর্নামেন্টটিও হয়েছিল জুন-জুলাই মাসেইয তাই এই সময়ের ইংরেজ পরিবেশ পরিস্থিতি সম্পর্কে তাঁর ভাল ধারণা রয়েছে।
অপরদিকে রায়ডু এর আগে ইংল্যান্ডে খেলেননি। নিউজিল্যান্ডের পিচে সুইং বোলিং-এর বিরুদ্ধে রায়ডু ব্যর্থ হন। এইসব ভেবে চিন্তেই রায়ডুর বদলে মাযাঙ্ক আগরওয়ালকে চেয়ে পাঠান শাস্ত্রী-কোহলি।