এতক্ষণে ভারতীয় সমর্থকরা সবাই জেনে গিয়েছেন বৃষ্টিতে যদি সেমিফাইনাল ম্য়াচ ভেস্তেও যায়, তাহলেও ভারতীয় দল ফাইনালে উঠে যাবে গ্রুপ পর্বে এগিয়ে থাকার সৌজন্য়ে। কিন্তু এভাবে বিশ্বজয়টা ভারতীয় সমর্থকদের মনঃপুত হচ্ছে না। সেমিফাইনালে মাঠে লড়েই নিউজিল্যান্ডকে পরাজিত করেই ভারত কাপের দিকে এগিয়ে যাক, এটাই চাইছেন তাঁরা। তাঁদের জন্য সুখবর। ম্যাঞ্চেস্টারে বুধবার দেখা মিলেছে সূর্যের। তাই নির্ধারিত সময় অর্থাৎ ভারতীয় সময় বেলা ৩টে থেকেই খেলা শুরু করে দেওয়া যাবে, এমনটাই মনে করা হচ্ছে।

ম্যাচ শুরু হতে আর এক ঘন্টা বাকি। কিউইরা টুইটারে জানিয়ে দিয়েছে, তাঁরা মাঠে এসে গিয়েছেন। আকাশে মেঘের মাঝখানে টুকরো টুকরো নীল আকাশও দেখা যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

ভারতীয় দলও ইতিমধ্যেই মাঠে পৌঁছে অনুশীলন করা শুরু করে দিয়েছে।

আরও পড়ুন - ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতি কী, কীভাবেই বা গণনা হয় লক্ষ্যমাত্রা

আরও পড়ুন - খেলা বন্ধ বৃষ্টিতে, চলছে ডার্কওয়ার্থ-লুইস অঙ্ক! ভারতের সামনে লক্ষ্য কত হবে

আরো পড়ুন - প্রথম বলেই নাটক, রিভিউ বাতিল হওয়ায় ভুবিকেই দুষছেন ক্রিকেটপ্রেমীরা

তবে খেলা নির্ধারিত সময়ে শুরু করা গেলেও মাঝে বিঘ্ন ঘটার সম্ভাবনা থাকছেই। আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে ভারতীয় সময় বিকেল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ বৃষ্টি আসতে পারে। তবে ভারি বৃষ্টি নয়, হালকা থেকে মাঝারির মধ্যেই বৃষ্টি-অসুরের দাপট সীমাবদ্ধ থাকবে বলে মনে করা হচ্ছে। ঝেঁপে বৃষ্টি আসার কথা সন্ধ্য়ায়। তবে এটা শুধু মাত্র পূর্বাভাস। প্রকৃতি খেল দেখাতে চাইলে যার কোনও মূল্য থাকে না।

বৃষ্টি থেমে রোদ উঠলেও, মাঠের একাধিক জায়গায় ঘাসের নিচে জল দাঁড়িয়ে আছে। মাঠকর্মীরা মাঠ শুকনোর চেষ্টা করে যাচ্ছেন। পিচের ঢাকনা সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। বৃষ্টির উপর কারোর হাত না থাকলেও এই পিচ নিয়ে কিন্তু আয়োজকদের প্রবল সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে। মঙ্গলবার ওল্ড ট্রাফোর্ডে একেবারে নতুন পিচ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু নিউজিল্যান্ড ইনিংসেই ক্রমে মন্থর হতে দেখা গিয়েছে। বল থমকে থমকে আসছে। স্ট্রোক খেলতে পারছেন না ব্যাটসম্যানরা। বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের মতো ম্যাচের জন্য এই পিচ একেবারে অযোগ্য বলা হচ্ছে।