আর একটা দিন। তারপরই বিশ্বকাপ ২০১৯-এ ভারতের অভিযান শুরু হয়ে যাবে। প্রথম ম্যাচের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা। একদিকে বিরাট-ধোনিদের বিশ্বকাপ জেতার অন্যতম দাবিদার ধরা হচ্ছে, অন্যদিকে প্রথম দুই ম্যাচেই পরাজিত হয়ে বেকায়দায় দক্ষিণ আফ্রিকা।

বিশ্ব ক্রিকেটে অবশ্য বরাবরই দক্ষিণ আফ্রিকা অন্যতম বড় শক্তি। এখনও পর্যন্ত একবারও বিশ্বকাপ জেতা দূর, ফাইনালেই না উঠতে পারলেও বরাবরই মহান সব ক্রিকেটার এসেছেন এই আফ্রিকান দেশটিতে। তবে এই মুহূর্তে বেশ চাপে প্রোটিয়ারা। গত কয়েক বছরে একদিকে এবি ডিভিলিয়ার্সের মতো ব্যটসম্যান আচমকা অবসর নিয়েছেন, আবার আর্থিক সমস্যার কারণে বেশ কিছু প্রতিভাবান ক্রিকেটার দেশের হয়ে না খেলে ক্লাব ক্রিকেটকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন।

অন্যদিকে অতীতে শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে বহু ম্যাচে পরাজিত হলেও সাম্প্রতিককালে কিন্তু বিরাট কোহলির নেতৃত্বে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়ে সেখানে প্রথম দ্বিপাক্ষিক সিরিজ জিতেছে ভারত। বর্তমানে একদিনের ক্রিকেটে ভারত দুই নম্বর দল। এইবারের বিশ্বকাপ জেতার অন্যতম দাবিদার হিসেবে ধরা হচ্ছে বিরাটদের।

বিশ্বকাপের অষ্টম ম্যাচের বল গড়ানোর আগে দেখে নেওয়া যাক, দুই দলের দ্বৈরথের অতীত পরিসংখ্যান কী বলছে।

একদিনের ক্রিকেটে এখনও পর্যন্ত মোট ৮৩টি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারত। তারমধ্যে জয়ের সংখ্যায় অনেকটাই এগিয়ে প্রোটিয়ারা। ৪৬টি ম্যাচে জয় পেয়েছে তারা, সেখানে ভারতের জয়ের সংখ্যা ৩৪। আর ৩টি ম্যাচে কোনও ফলাফল হয়নি।

আর বিশ্বকাপের মঞ্চে দুই দলের সাক্ষাত হয়েছে মোট ৪ বার। সেখানেও জয়ে এগিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকাই। ৩টি ম্যাচ জিতেছে তারা, ভারত ১টিতে।

তবে সাম্প্রতিক রেকর্ড ভারতের পক্ষে। ২০১৮ সালের শুরুতেই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়েছিল ভারত। দুই দলের মধ্যে ৫ ম্যাচের দ্বিপাক্ষিক সিরিজ ৪-১ ফলে জিতে নিয়েছিল ভারত। একটি ম্যাচেও দক্ষিণ আফ্রিকা ২৫০ রানই পার করতে পারেনি। যে একটিমাত্র ম্যাচ তারা জিতেছিল, তাও ছিল বৃষ্টি-বিঘ্নিত, ডার্কওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে তারা জয় পায়।