একদিনের ক্রিকেটে তাঁর সমাময়িক মহেন্দ্র সিং ধোনি ১০০০০ রান করেছেন। কিন্তু যুবরাজের কেরিয়ার শেষ হল ৮৭০১ রানে। তবে একদিনের ক্রিকেট নিযে কোনও আক্ষেপই নেই যুবির, আছে টেস্ট ক্রিকেট নিয়ে।

একদিনের ক্রিকেটে শুধু ভারত নয় বিশ্ব ক্রিকেটেরই সর্বকালের শ্রেষ্ঠদের মধ্যে আসন পাবেন যুবরাজ। কিন্তু টেস্ট ম্য়াচে কোনওদিনই ততটা সফল নন যুবরাজ। অবসরের দিন এই নিয়ে আক্ষেপ ঝড়ে পড়ল তাঁর গলায়।

যুবির টেস্ট কেরিয়ার

সব মিলিয়ে মোট ৪০টি টেস্ট খেলেছেন যুবরাজ। রান করেছেন ১৯০০। ব্যাটিং গড় ৩৩.৯২। শতরান রয়েছে ৩টি, অর্ধশতরান ১১টি। সর্বোচ্চ রান ১৬৯। উইকেট পেয়েছেন ৯টি।

কেন আক্ষেপ নেই ওডিআই নিয়ে?

যুবি জানিয়েছেন, ৮০০০ রান করলেন না ৯০০০ তাঁর কাছে সেটা কোনও দিনই বড় ছিল না। কাজেই ১০০০০ রান না হওয়া নিয়ে কোনও আক্ষেপ তাঁর নেই। বরাবর তিনি বিশ্বকাপ জিততে চেয়েছিলেন। সেই লক্ষ্যটা পূর্ণ হয়েছে। তাতেই তিনি সন্তুষ্ট।

টেস্টে কেন সফল নন?

যুবি তাঁর টেস্ট কেরিয়ারকে দুটি ভাগে ভাগ করেছেন, সৌরভ-রাহুলদের সময় আর তাঁদের অবসর পরবর্তী সময়।

যখন সৌরভ- রাহুলরা খেলতেন তখন দলে বীরেন্দ্র সেওয়াগ ওপেন করতেন, আর মিডল অর্ডারে ছিলেন রাহুল, সচিন, সৌরভ, লক্ষ্মণদের মতো ক্রিকেটার। তাই তাঁর পক্ষে দলে সুযোগ পাওয়া খুবই কঠিন ছিল। সুযোগ মিলত ১-২ টি টেস্টে। সেখানে ব্যর্থ হলেই আবার বসে থাকতে হত। এইভাবে প্রায় ৪০টি টেস্ট তাঁকে দলে থেকে বাইরে বসতে হয়েছে।

সৌরভরা বিদায় নেওয়ার পরের একবছর তিনি ধারাবাহিকভাবে টেস্ট খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু এরপরই শরীরে থাবা মারে কর্কট রোগ। যার ফলে তাঁকে দলের বাইরে যেতে হয়। আর টেস্ট খেলা হয়নি। তাই তাঁর ব্যাটিং গড় ৪০-ও পার করেনি। যা বলার মতো কিছু নয়। যুবরাজ জানিয়েছেন, টেস্ট গড় ৪০-এর উপর হলে তাঁর ভাল লাগত।