ইংল্যান্ডের ক্রিকেটার জোফরা আর্চারের বিরুদ্ধে করা বর্ণ বৈষম্য মূলক মন্তব্য নিয়ে ইতিমধ্যেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ক্রিকেট বিশ্বে। ইংল্যান্ড নিউজিল্যান্ড প্রথম টেস্টের শেষ দিন এই কথা সামনে এসেছিল। গ্যালারি থেকে উড়ে আসা এই উক্তি নিয়ে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট লজ্জার মুখে পরেছে। কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন নিজে ক্ষমা চেয়েছেন আর্চারের কাছে। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডও জানিয়েছে এই বিষয়ে তারা চুপ করে বসে থাকবে না। বর্ণ বৈষম্য মূলক মন্তব্য করা সেই সমর্থককে চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। এই তদন্তেই এবার উঠে এসেছে নতুন তথ্য। 

আরও পড়ুন - জানুয়ারি পর্যন্ত প্রশ্ন করবেন না, ধোনির উত্তরে শুরু নতুন জল্পনা

মাঠের যে অংশ থেকে এই উক্তি উড়ে সেছিল সেই অংশের সমর্থদের সঙ্গে কথা বলা শুরু করেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। আর এই তদন্তেই উঠে এসেছে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। সেদিন মাঠে উপস্থিত থাকা দুই ভাই জানিয়েছেন, জোফরা আর্চারকে সেদিন বর্ণ বৈষম্য মূলক মন্তব্য করেছিল এক ইংরেজ সমর্থক। নিউজিল্যান্ডের সমর্থকদের এর পেছনে কোনও হাত নেই। এমনই দাবি করছেন সেদিন মাঠে উপস্থিত থাকা দুই ভাই। তারা জিয়েছেন, ‘যে এই উক্তি করেছে সে ইংল্যান্ডের সমর্থক ছিল। মাঠে সারাক্ষণ সে ইংল্যান্ডের ক্রিকেটারদের নিয়েই কথা বলছিল। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটারদের নিয়ে একটাও কথা বলেনি সে।’

আরও পড়ুন - মেসির নতুন রেকর্ড, টানা ১৩ বার গ্রুপ শীর্ষে থেকে দ্বিতীয় রাউন্ডে বার্সা

এই তথ্য সামনে উঠে আসার পরই ইংল্যান্ড ক্রিকেটের শুরু হয়েছে বিতর্ক। কারণ দোফরা আর্চার জন্মগত দিক থেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বার্বেডোজে। জোফরার বাবা ইংরেজ। সেই সুত্র ধরেই ২০১৫ সালে ইংল্যান্ডে এসেছিলেন জোফরা। ইংল্যান্ডে আসার আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজ জাতীয় দলের বয়েস ভিত্তিক দলের হয়েও মাঠে নেমেছিলেন জোফারা। ২০১৮ সালে নিজেদের নিয়মে কিছু পরিবর্তন করে ইংল্যান্ডের জাতীয় দলে সুযোগ করে দেওয়া হয় জোফারা আর্চারকে। এই বিষয়টি অনেক ইংরেজই ভাল চোখে নেননি। তাই বিশ্বকাপে জোফরার খেলা নিয়েও অনেকেই প্রশ্ন তুলেছিলেন। তাই ক্রিকেট মহল মনে করছে নিউজিল্যান্ডের মাঠে ইংরেজ সমর্থক যদি জোফরাকে কটুক্তি করে থাকেন সেটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। এখন দেখার সত্যিটা কবে সামনে আসে। 

আরও পড়ুন - ধোনি ও কোহলির সঙ্গে কেমন সম্পর্ক মুখ্য নির্বাচক এমএসকে প্রসাদের, জানালেন নিজেই