পরের মরশুমে নতুন রাজ্যের হয় খেলার কথা আগেই ঘোষণা করেছেন বাংলার তারকা পেসার অশোক দিন্দা। একইসঙ্গে নিজেকে রাজনীতির শিকার বলেও দাবি করেছেন তিনি। আক্রমণ করতে গিয়ে বাংলা দলের বর্তমান বোলিং কোচ ও একদা সতীর্থ রণদেব বসুকে করোনা ভাইরাসের সঙ্গে তুলনা করতেও দ্বিধা বোধ করেননি দিন্দা। তবে এবার শুধু বোলিং কোচ রণদেব  বসু নয়, দিন্দার নিশানায় এবার বাংলা দলের প্রধান কোচ অরুণ লালও। দিন্দার অভিযোগ, রণদেব বসুর সঙ্গে হাত মিলিয়ে অরুণ লাল তাঁকে বাংলা দল থেকে বাদ  দেওয়ার ব্যবস্থা করেন।

আরও পড়ুনঃপরিবারে একের পর এক করোনার থাবা,রাতের ঘুম কেড়েছে সৌরভের

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ১১৬টি  ম্যাচে ৪২০ উইকেটের মালিক অশোক দিন্দা আরও অভিযোগ করেছেন অরুণ লাল ও রণদেব বসুর বিরুদ্ধে।  দিন্দার অভিযোগ, 'আমি ফিট কিনা, সেটা কি কোচ বলে দেবেন? কোচ নিজে ফিট কিনা সে বিষয়ে সন্দেহ থেকে যায়। অরুণ লালের থিওরি হল যত পারো দৌড়ে যাও। এটা নব্বইয়ের দশকের থিওরি। এখনকার ক্রিকেট বদলে গিয়েছে। এতবছর ধরে যেভাবে ট্রেনিং করে আসছি, সেটা হঠাৎ করে বদলে দেওয়া আমার পক্ষে সম্ভব ছিল না।' দিন্দা আরও বলেন, 'আমি ক্লাব ক্রিকেট খেলি না, তাতে কোচের আপত্তি। ম্যাচে টানা বল করার পর ঘামে ভিজে যাওয়া পোশাক বদলাতে ড্রেসিংরুমে গেলে কোচের আপত্তি। ডাক্তারের নিষেধ রয়েছে বলে রাস্তায় দৌড়তে না চাইলে কোচের আপত্তি। আমার কোনও বিষয়ই কোচের পছন্দ ছিল না। আমার কাজ পারফর্ম করা। মাঠে নেমে উইকেট নিয়ে যাই বলে আমাকে চাপে ফেলা সম্ভব হচ্ছিল না। তাই রণদেবের সঙ্গে হাত মিলিয়ে আমাকে দল থেকে বার করে দেওয়ার ব্যবস্থা করেন অরুণ লাল।'

আরও পড়ুনঃফুটবল বিশ্বে বড় খবর,অবসর ভেঙে মাঠে ফিরছেন রোনাল্ডিনহো

আরও পড়ুনঃওয়ার্নারের কন্ঠে শুনুন 'বড় লোকের বেটি লো',যা শুনে হেসে লুটোপুটি খাবেন আপনিও

বাংলা ছাড়া আগে যে দিন্দা নিজের ক্ষোভ উগরে দেবেন তা এক প্রকার নিশ্চিৎই ছিল। ইতিমধ্যেই কয়েকটি রাজ্যের সঙ্গে পরের মরসুমে খেলার বিষয়ে কথাও হয়েছে বলে আগই জানিয়েছিলেন দিন্দা। তবে চূড়ান্ত কথা কারও সঙ্গে হয়নি বলে জানিয়েছেন ভারতীয় পেসার। তবে সূত্রের খবর, গোয়া কিংবা ছত্রিশগড়ের হয়ে খেলতে দেখা যেতে পারে বর্ষীয়ান এই ক্রিকেটারকে। নতুন মরসুমে নতুন দলের হয়ে পারফর্ম করে জবাব দেওয়াই এখন লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন দিন্দা।