একে আইসিসি একের পর এক বৈঠক করছে,কিন্তু টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারছে না। যার ফলে এখনও ধোঁয়াশাতেই থেকে যাচ্ছে আইপিএলের ভবিষ্যৎ। অপরদিকে আইপিএল থেকে চিনা স্পনসর বাতিলের জন্য চাপ। যার ফলে কোটি কোটি টাকা ক্ষতি হতে পারে বোর্ডের। ভারতীয় দলের আন্তর্জাতিক সিরিজ শুরু নিয়ে রয়েছে নানা ধরনের চাপ। সময়টা মোটেই ভাল যাচ্ছে না বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের। আর তার উপর পরিবারে একের পর এক করোনা ভাইরাসের থাবা কার্যত রাতের ঘুম কেড়েছে সৌরভের। সূত্রের খবর এবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছে হয়েছেন সৌরভের দাদা স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায়ও।

আরও পড়ুনঃপাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজমকে 'খুনের' হুমকি দিলেন সানিয়া মির্জা

এর আগে সৌরভের বউদি অর্থাৎ স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায়ের স্ত্রী ও শ্বশুর, শাশুড়ি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। যেই খবর প্রকাশ্যে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে ক্রিকেট মহলে। বর্তমানে তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। সম্প্রতি সূত্র মারফত জানা যায় যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্য়ায়ও। কিন্তুব পরিবারের তরফ থেকে অস্বীকার করা হয়েছে। অস্বীকার করেছেন স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্য়ায়ও। কিন্তু জানা গিয়েছে বেশ কিছু দিন ধরেই স্নেহাশিস অন্যত্র একটি ফ্ল্যাটে থাকতেন। সূত্রের খবর, স্ত্রীর সংস্পর্শ থেকেই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন স্নেহাশিস। করোনা আক্রান্ত হওয়ার কারণেই অন্যত্র ফ্ল্যাটে থাকতেন বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুনঃচশমা পড়া মহিলার সঙ্গে ডেটিং করতে চান সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, আপনার কাকে পছন্দ,তালিকায় রয়েছেন অনেকেই

আরও পড়ুনঃহঠাৎ ফুটবল মাঠে ওসামা বিন লাদেন, বিতর্কে লিডস ইউনাইটেড

পরিবারের একের পর এক সদস্যের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবরে উদ্বিগ্ন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। বাইরে বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হিসেবে পাহাড় প্রমাণ কাজের চাপ, আর বাড়িতে পরিবারকে গ্রাস করেছে করোনা আতঙ্ক। যার ফলে চিন্তিত সৌরভও। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন বাংলার দাদা। সাহায্যের হাত বাড়িয় দিয়েছেন লক্ষ লক্ষ মানুষের উদ্দেশ্যে। নিজের পরিবারকেও সুরক্ষিত ও সচেতন থাকার কথা বলেছেন।  কিন্তু পরিবারেএকের পর  এক মারণ ভাইরাসের থাবায় বিধস্ত সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।