'আমি কোনও ভূল করে থাকলে দয়া করে ক্ষমা করে দিন', বাংলাদেশের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ভারতে হিন্দু অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য ইসলামপন্থী হুমকির পরে জনসমক্ষে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হলেন। মূলত কলকাতায় কালীপুজোর উদ্ধোধনে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে ধর্মান্ধ-উগ্র মৌলবাদীদের রোষের মুখে পড়েছেন বাংলাদেশী ক্রিকেটার সাকিব।  বাধ্য হয়েই এরপর তিনি ক্ষমা চেয়েছেন। এদিকে ।ক্ষমা চেয়ে তিনি হিন্দু ধর্মের অপমান করেছেন, বলেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন।

আরও পড়ুন, সাকিবকে কেটে টুকরো টুকরো করার হুমকি, ঘটনায় গ্রেফতার মূল অভিযুক্ত

 

 

 উগ্র মৌলবাদীদের রোষের মুখে পড়ার ভয়


 সাকিব বর্তমানে আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের শীর্ষস্থানীয় অলরাউন্ডার। ২০১২ সালের অক্টোবরে আইসিসি-এর দুর্নীতি দমন আইন লঙ্ঘন করতে দেখা গিয়েছিল এবং এক বছরের জন্য স্থগিত করে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। নির্বাসন পর্ব কাটিয়ে দুনিয়ায় ফিরেও বিতর্কে জড়িয়েছেন তিনি। ভিন্ন ধর্মের দেব-দেবীর পুজোয় জড়ানোর জন্য সাকিবকে অভিযুক্ত করে, তাঁকে খুনের হুমকিও দিয়েছেন বাংলাদেশেরই এর ব্যক্তি। এরপরেই উগ্র মৌলবাদীদের রোষের মুখে পড়ার ভয়ে শেষ শিউরে ওঠেন সাকিব। নিজেকে বাঁচাতে কালীপুজোয় উপস্থিত হওয়ার জন্য ক্ষমা চাইতে শেষমেষ বাধ্য হন। এখানেই শেষ নয়, ভয়ের আবহে সাকিব নিজের সম্বন্ধে ব্যাখ্যা দেন, তিনি একজন ধর্মনিষ্ঠ মুসলিম। সবসময় নিজের ধর্মীয় রীতিনীতি মেনে চলার চেষ্টা করেছেন।

আরও পড়ুন, সুখবর, বাংলায় সুস্থতার হার ছাড়াল ৯২ শতাংশ, কোভিড জয়ীদের জন্য করতালি

 

 

'ক্ষমা চেয়ে সাকিব হিন্দু ধর্মের অপমান করেছেন', তসলিমা


  তিনি আরও বলেন, 'তবে, সম্ভবত, আমার সেখানে যাওয়া উচিত হয়নি। আমি এ জন্য দুঃখিত। আমি কোনও ভূল করে থাকলে দয়া করে ক্ষমা করে দিন। এদিকে বাংলাদেশ থেকে নির্বাসিত 'দ্বিখন্ডিত'-র লেখিকা তসলিমা নাসরিন টুইট করে বলেছেন, শাকিবের ক্ষমা চাওয়া উচিত হয়নি।ক্ষমা চেয়ে তিনি হিন্দু ধর্মের অপমান করেছেন। এবং আরও জানিয়েছেন,' এতে ইসলামপন্থীরা আরও চাঙ্গা হবে। হিন্দুদের প্রতি সহানুভূতি প্রকাশ করা বা পুজো মন্ডবে যাওয়া মুসলিমদের হত্যা করার সাহস পেয়ে যাবে।'