কলকাতায় কালী পুজোর উদ্বোধনে এসে খুনের হুমকি পেয়েছিলেন বাংলাদেশের তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সেই কারমেই সাকিবকে ফে,বুক লাইভ ধারাল অস্ত্র দেখিয়ে কেটে টুকরো টুকরো করে ফেলার হুমকি দেন মহসিন তালুকদার নামে এক যুবক। এরপর থেকেই বিষয়টি নিয়ে তীব্র চাঞ্চল্য তৈরি হয় বাংলাদেশে। কিছুটা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন সাকিব ও তার পরিবার। অবশেষে ঘটনায় মূল অভিযুক্তমহসিন তালুকদারের রাতভর চল্লাশি চালানোর পর মঙ্গলবার তাকে গ্রেফতার করল পুলিস। 

শুক্রবার কাঁকুড়গাছির পরেশ পালের পুজোর উদ্বোধন করতে একদিনের কলকাতা সফরে এসেছিলেন বিশ্ব ক্রিকেটার অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সেই কারণে রবিবার রাতে ফেসবুক লাইভে মহসিন তালুকদার নামে এক যুবক সাকিবকে খুনের হুমকি দেন। লাইভ চলাকালীন ধারাল অস্ত্র নিয়ে সাকিবকে শাসানিও দেন তিনি। অকথ্য ভাষায় গালিগালাজও করেন মহসিন।  সোমবার ভোরে ফের আরও একটি ফেসবুক লাইভ করেন ওই যুবক। সেখানে জাতির কাছে কালী পুজোর উদ্বোধন করার জন্য সাকিবকে ক্ষমা চেয়ে নিতে বলেন। শুধু ফেসবুক লাইভে  হত্যার হুমকি মিলেছে এমনটা নয়। মীরপুরে অনুশীলন করার সময় সমর্থকদের বিদ্রুপের মুখে পড়েন সাকিব আল হাসান। দেওয়া হয় স্লোগানও। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে কোনও উপা না থাকায় ইউটিউবে নিজের চ্যানেলে ক্ষমা চেয়ে নেন সাকিব আল হাসান। তিনি বলেন,'আমি নিজেকে গর্বিত মুসলমান মনে করি। ভুলত্রুটি হবেই। তা নিয়েই চলতে হবে। আমি কোনও ভুল করে থাকলে ক্ষমাপ্রার্থী। আপনাদের মনে কষ্ট দিয়ে থাকলে ক্ষমা চাইছি।'

এই ঘটনার পর নড়ে বসে পুলিস প্রশাসন। অভিযোগ দায়ের করা হয় সাইবার ক্রাইমেও। তড়িঘড়ি ঘটনায় তদন্ত শুরু করে ব়্যাব। তল্লাশি শুরু হয় ঘটনায় মূল অভিযুক্ত মহসিন তালুকদারের। মঙ্গলবার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। র‌্যাব-৯ এর এএসপি কামরুজ্জামান ও সুনামগঞ্জ র‌্যাব কমান্ডার ফয়সাল আহমেদ গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে। তার বিরুদ্ধে জালালাবাদ থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করে শুরু হয়েছে তদন্ত। তবে কালী পুজোর উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে এসে যেভাবে প্রাণ নাশের হুমকির মুখে পড়তে হল সাকিব আল হাসানকে, সেই ঘটনার নিন্দায় সরব সব মহল।