সারা বিশ্ব বর্তমানে তৈরি বাংলাদেশের সিলেটে আয়োজিত বিশ্ব একাদশ বনাম এশিয়া একাদশের ম্যাচ চাক্ষুস করার জন্য। এশিয়া একাদশ ঘোষিত হয়েছিল আগেই, সম্প্রতি ঘোষিত হল বিশ্ব একাদশ। বাংলাদেশের শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০০ তম জন্মবার্ষিকীতে মার্চের ১৮ এবং ২১ তারিখে তারা দুটি টি-টোয়েন্টি খেলবে। 

এশিয়া একাদশে বেশিরভাগ খেলোয়াড়ই ভারতীয় ছয় জন ভারতীয় খেলোয়াড় এই স্কোয়াডে জায়গা পেয়েছে। বিরাট কোহলি, শিখর ধাওয়ানের মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটাররা যেমন দলে রয়েছেন, তেমনি তরুণ তুর্কি রিসভ পন্থ, কুলদীপ যাদব-রাও স্কোয়াডে সুযোগ পেয়েছেন। বাংলাদেশের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার তামিল ইকবাল এবং মুশফিকুর রহিম দলে জায়গা পেয়েছেন। পাকিস্তানের কোনো খেলোয়াড় না থাকলেও দলে রয়েছেন আফগানিস্তান থেকে ওই দেশের স্পিন আক্রমনের জোড়া ফলা রশিদ খান এবং মুজিবুর রহমান। শ্রীলঙ্কা থেকে রয়েছেন অভিজ্ঞ পেসার লাসিথ মালিঙ্গা। ক্রিকেটে নবাগত নেপালের থেকে বিশ্ব ক্রিকেটে আলোড়ন ফেলে দেওয়া স্পিনার সন্দীপ লামিছানেকেও স্কোয়াডে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। 

বিশ্ব একাদশে প্রাধান্য দেখা যাচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ খেলোয়াড়দের। মোট চার জন ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটার স্কোয়াডে জায়গা পেয়েছেন। তারা হলেন ক্রিস গেইল, নিকোলাস পুরান, কিরণ পোলার্ড, শেলডন কটরেল। এই চার জন ক্যারিবিয়ানের সাথে সাথে বিশ্ব একাদশে ঝলমল করছে তরুণ ব্যাটসম্যান আলেক্স হেলস, অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান রস টেইলরের মতো ক্রিকেটারদের নাম। এই বিশ্ব একাদশ দলের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব থাকছেন ফ্যাফ দু প্লেসিস। সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট এবং ওয়ান ডে দলের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব ছেড়েছেন তিনি। তার জায়গায় অধিনায়ক হয়ে এসেছেন কুইন্টন ডি কক। কিন্তু তা সত্ত্বেও ফ্যাফ দু প্লেসিসের উপরেই অধিনায়কত্বের গুরুদায়িত্ব অর্পণ করা হয়েছে। নিউজিল্যান্ড দল থেকে সব ধরনের ক্রিকেটে ১০০টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে ফেলা রস টেলর আর ফাস্ট বোলার মিচেল ম্যাকলেনাঘান।