অপেক্ষা ছিল শুধু সরকারি ঘোষণার। বৃহস্পতিবার হয়ে গেল সেই ঘোষণা। সরকারিভাবে বিসিসিআইয়ের তরফে জানানো হল অনির্দিষ্ট কালের জন্য 
স্থগিত হয়ে গেল আইপিএল ২০২০। দেশে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির কথা ভেবেই এই সিদ্ধান্ত বিসিসিআইয়ের। করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় আগে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মঙ্গলবার ছিল তার শেষ দিন। মঙ্গলবার লকডাউনের সময়সীমা বাড়িয়ে ৩ মে  পর্যন্ত করেন প্রধানমন্ত্রী। তারপরই বিসিসিআইব কর্তারা পাকা করে ফেলেছিলেন আইপিএল স্থগিত করার সিদ্ধান্ত। সেই সিদ্ধান্তই জানানো হল বৃহস্পতিবার। কিন্তু সূত্রের খবর, ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলিকে এবছরের আইপিএল বাতিলের কথাও একপ্রকার জানিয়ে রেখেছে বিসিসিআই।
আরও পড়ুনঃধোনির হয়ে ব্যাট ধরলেন কাইফ, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে ধোনিকে রাখার পক্ষে সওয়াল

গত মঙ্গলবার আইপিএল চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল, বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, বোর্ড সচিব জয় শাহ , এবং বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধূমল ভিডিও কনফারেন্সে এক জরুরি বৈঠক করেন। সেই বৈঠকেই ঠিক হয়, লকডাউন বেড়ে যাওয়ার ফলে আপাতত আইপিএল আয়োজিত হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তারপরই বুধবার বেসরকারিভাবে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলিকে জানিয়ে দেওয়া হয়, এই পরিস্থিতিতে আইপিএল আয়োজন সম্ভব নয়। বৃহস্পতিবার বিসিসিআই সচিব জে শাহ স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করে একটি বিবৃতি প্রকাশ করনে। তাতে জানানো হয়,'করোনা ভাইরাসেক কারণে পুরো পৃথিবীর স্বাস্থ্যের কথা ভেবে বিসিসিআইয়ের আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিল সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, আইপিএল ২০২০ মরসুম পরবর্তী বিজ্ঞপ্তি অবধি স্থগিত করা হল। এই খেলার সঙ্গে জড়ি সকলের কথা ভেবেই বিসিসিআই সহ ফ্র্যাঞ্চাইজ মালিক, ব্রডকাস্টার, স্পনসর এবং সমস্ত স্টেকহোল্ডাররা সহমত পোষণ করেছেন যে আইপিএল তখনই শুরু করা সম্ভব ছখন তা একেবারে নিরাপদ হবে। একইসঙ্গে বিসিসিআই  পরিস্থিতির উপর নজর রাখছে এবং সকলের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমেই ও রাজ্য সরকারের রিপোর্টের ভিত্তিতেই  আইপিএল নিয়ে আলোচনা এগোবে।'
আরও পড়ুনঃটি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের অভিনব উপায় বাতলালেন প্রাক্তন অজি তারকা ব্র্যাড হগ
আরও পড়ুনঃভাঙা হাঁটু নিয়ে গোটা বিশ্বকাপ খেলেছিলেন মহম্মদ সামি, নিজেই ফাঁস করলেন সেই রহস্য
যদিও সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বরের উইন্ডোতে আইপিএল করার একটা শেষ চেষ্টা চালাবেন বোর্ড কর্তারা। তবে অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে রয়েছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও তার আগে রয়েছে এশিয়া কাপ। আইসিসি ও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া যদি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপর সূচি পরিবর্তন করতে রাজি হয় তাহলেই আইপিএল করা সম্ভাব। একইসঙ্গে বাতিল বা পিছিয়ে দিতে হবে এশিয়া কাপকেও। কিন্তু ইতিমধ্যেই আইপিএলের জন্য এশিয়া কাপ পিছোনো বা বাতিল করার মত কোনও সিদ্ধান্ত মেনে নেবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি।  ফলে সব দিক থেকে বিচার করে ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের মত এবছরের মত বাতিলই হতে চলেছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ।