চলতি বছরেই অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে হওয়ার কথা ছিল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। কিন্তু করোনা মহামারীর কারণে শেষ পর্যন্ত তা স্থগিত হয়ে যায়। ঠিক হয় ২০২২ সালে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে হবে স্থগিত হয়ে যাওয়া বিশ্বকাপ। আর ২০২১ সালে পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী যেমন ভারতের মাটিতে টি২০ বিশ্বকাপ হওয়ার কথা , তা বহাল থাকবে। ফলে আগামি বছর ঠিক এই সময়তেই ভারতের মাটিতে বসবে ক্রিকেটের সব থেকে আধুনিক সংস্করণের মহাযজ্ঞ। ফলে হাতে সময় মাত্র আর এক বছর। তাই আইপিএল শেষ হতে না হতেই টি২০ বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু করে দিল বিসিসিআই ও আইসিসি।

টি২০ বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে বৃহস্পতিবার দুবাইতে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আইসিসি। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, বিসিসিআই সচিব জয় শাহ, আইসিসির চিফ এগজিকিউটিভ‌ মানু সহনি সহ অন্যান্যরা। অনুষ্ঠান থেকে টি২০ বিশ্বকাপ সফল আয়োজনের বিষয়ে আশা প্রকাশ করে বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বলেন,'পুরুষদের টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করতে পারাটা খুবই সম্মানের। ‌১৯৮৭ সাল থেকে ভারত সফলভাবে বিভিন্ন আইসিসি ইভেন্টের আয়োজন করে এসেছে। আমার মনে হয় ক্রিকেটাররাও ভারতে খেলার জন্য মুখিয়ে থাকবেন। আগে ক্রিকেটার হিসেবে আইসিসি ইভেন্টে যোগ দিয়ে বুঝেছি, এই সময় গোটা বিশ্বে কতটা উত্তেজনা থাকে। প্রত্যেকটি খেলায় লক্ষ লক্ষ মানুষের নজর থাকে। তবে এবার আমি প্রশাসক হিসেবে সফলভাবে ঐতিহ্যশালী এই টুর্নামেন্ট আয়োজনের ব্যাপারে আশাবাদী।' 

সদ্য সমাপ্ত হয়েছে আইপিএল ২০২০২। করোনা মহামারীর মধ্যে চ্যালেঞ্জ নিয়ে বিদেশের মাটিতে সফলভাবে এত বড় মাপের প্রতিযোগিতা আয়োজন করে বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট বুঝিয়ে দিয়েছেন মতার অভিধানে অসম্ভব বলে কোনও শব্দ নেই। আগামি বছর শুধু টি২০ বিশ্বকাপ নয়, আর কয়েক মাস পরেই শুরু হতে চলেছে আইপিএলের ১৪ তম মরসুম। সেটিও ভারতের মাটিতে করার ইচ্ছে রয়েছে বিসিসিআইয়ের। দেশের করোনা পরিস্থিতিতে যা বিশাল বড় মাপের চ্যালেঞ্জ। ফলে ডবল চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত বাংলার 'দাদা'।