বিশ্বকাপ মাতিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। হুইল চেয়ারে করে তিনি প্রায় প্রতিটি ম্য়াচে মাঠে এসে ভারতীয় ক্রিকেট দলকে উৎসাহ দিয়েছিলেন বিলেতের মাঠে। রোহিত শর্মা-বিরাট কোহলিরা গ্যালারিতে উঠে তাঁর কাছে গিয়ে সেই ভালোবাসা ফিরিয়েও দিয়েছিলেন। সেই চারুলতা প্যাটেল আর নেই। ভারত হারালো তার সুপারফ্যানকে। ১৩ জানুয়ারি তিনি শেষ নিঢশ্বাস ত্যাগ করেছেন। বয়স হয়েছিল ৮৭ বছর।

বিশ্বকাপের সময় থেকেই ক্রিকেট.দাদি নামে চারুলতা প্যাটেল-কে নিয়ে একটি ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট চালু হয়েছিল। সেখানেই তাঁর মৃত্যুর খবর দেওয়া হয়েছে। ১৩তারিখ স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৫ টায় তাঁর প্রয়াণ ঘটে। ক্রিকেট.দাদির পক্ষ থেকে বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মা-কে ধন্যবাদ জানানো হয়েছে। বলা হয়েছে যেদিন ওই দুই ক্রিকেট তারকা তাঁর সঙ্গে এসে কথা বলেছিল, সেই দিনটিই ছিল চারুলতার জীবনের সেরা দিন।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সরকারি টুইটার হ্যান্ডেলেও চারুলতা প্যাটেলের মৃত্যুর খবর দিয়ে শোক প্রকাশ করা হয়েছে। তাঁকে সুপারফ্যান বলে উল্লেখ করে বোর্ড বলেছে ক্রিকেটের প্রতি তাঁর আবেদ ক্রিকেটারদের চিরদিন উৎসাহিত করবে।

গত বছর এজবাস্টন-এ বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ভারত-বাংলাদেশ ম্য়াচ চলাকালীন প্রচারের আলোয় এসেছিলেন চারুলতা প্যাটেল। মুখে ভারতের তেরঙ্গা রঙ লাগিয়ে গায়ে ভারতের পতাকা জড়িয়ে ম্য়াচের পুরো সময়টা তাঁকে প্রবল উৎসাহে ভেঁপু বাজাতে দেখা দিয়েছিল। ম্য়াচ শেষে তাঁর কাহিনি সকলকে ছুঁয়ে গিয়েছিল। এমনকী তাঁকে বিশ্বকাপে ভারতের লাকি ম্যাস্কট বলে প্রতি ম্যাচে আসার টিকিটের বন্দোবস্ত করে দেওয়া হয়েছিল।