ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট সিরিজের যাবতীয় আলো কেড়ে নিয়েছে কলকাতা। দেশের মাঠে প্রথম দিন রাতের টেস্ট নিয়ে উন্মাদনার পারদ সপ্তমে। টিকিটও কার্যত শেষের পথে। এই অবস্থায় ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে প্রথম টেস্ট নিয়ে বাকি দেশের উন্মাদনা সেই পর্যায়ে ওঠেনি। মঙ্গলবার থেকে শুরু হল ইন্দোর টেস্টের অফ লাইন টিকিট বিক্রি। অন লাইনে প্রথমে ৯ হাজার টিকিট ছেড়েছিল মধ্যপ্রদেশ ক্রিকেট সংস্থা। সেই টিকিটের অধিকাংশই বিক্রি হয়ে গেছে। বুধবার বিকেল পাঁচটার পর বন্ধ করে দেওয়া হবে অন লাইন টিকিট বিক্রির লিঙ্ক। 

আরও পড়ুন - ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট সিরিজ, কাদের সাহায্য করতে তৈরি ইন্দোরের ২২ গজ

ইডেনের মত মধ্য প্রদেশে টিকিট কেনার প্রক্রিয়া এতটা সহজ নয়। কোনও কোটায় একটি মাত্র দিনের টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে না। নভেম্বরের ১৪ ও ১৫ তারিখ একজন দর্শক একদিন বা দুদিনের টিকিট এক সঙ্গে কিনতে পারবেন। স্টুডেন্ট কোটার অবিক্রিত টিকিট অনলাইনে ছাড়া হয়েছে সোমবার রাত থেকে।  বাকি সাধারণ টিকিট দুটি ভাগে ভাগ করে ছেড়া হচ্ছে। একটি ১৫০ টাকার ও একটি ৪০০ টাকার। টিকিট বেঁচে থাকলে ১৪ তারিখও কাউন্টার থেকে টিকিট কেনা যাবে বলে জানিয়েছেন মধ্যপ্রদেশ ক্রিকেট সংস্থার কর্তারা। 

আরও পড়ুন - ভারতীয় দলে ৪ নম্বরে এবার দেখা যেতে পারে শ্রেয়াস আইয়ারকে

তবে আশার কথা একটাই সিজিন টিকিটের চাহিদা তুঙ্গে রয়েছে। ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে পুণে, বিশাখাপত্তনম ও রাঁচিতে তিনটি টেস্ট ম্যাচ খেলেছিল ভারত। তিনটি ম্যাচেই কার্যত ফাঁকা গ্যালারির সামনে প্রতিপক্ষকে ধরাসায়ী করে কোহলির দল। তথ্য বলছে মাঠে গিয়ে নয়, টিভির পর্দায় চোখ রেখে টেস্ট ম্যাচ দেখাই বেশি পছন্দ করছেন দর্শকরা। প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ শেষে অধিনায়ক বিরাট কোহলিও বলেছিলেন, টেস্ট ক্রিকেটকে পাঁচটি ভেন্যুতে সীমাবদ্ধ করে ফেলা উচিত।  

আরও পড়ুন - ১০ মাস নয়, বাড়তে চলেছে বোর্ড সভাপতি সৌরভের মেয়াদ