হিন্দি আমাদের মাতৃভাষা। তাই প্রত্যেক ভারতীয়র এই ভাষা পড়তে এবং বলতে পারা উচিত। সর্বভারতীয় একটি টিভি চ্যানেল-এ রঞ্জি ট্রফির ধারাভাষ্য দিতে গিয়েই বিতর্কিত এই মন্তব্য করে ফেলেন ওই প্রাক্তন ক্রিকেটার। 
মঙ্গলবার মাউন্ট মনগ্যানুই-তে তৃতীয় একদিনের ম্যাচ চলাকালীন কে এল রাহুর্ল এবং মনীশ পান্ডে ১০৭ রানের জুটি গড়েন। দু' জনেই কর্ণাটক থেকে আসায় ব্যাটিং-এর সময় তাঁরা কন্নড় ভাষাতেই কথা বলতে শুরু করেন। স্টাম্প মাইকে যা ধরাও পড়ে যায়। 

বৃহস্পতিবার রঞ্জিতে কর্ণাটক বনাম বরোদা খেলা চলাকালীন এই নিয়ে বিতর্তিত মন্তব্য করেন এক ধারাভাষ্যকার। ঘটনার সূত্রপাত বরোদার দ্বিতীয় ইনিংস চলাকালীন সপ্তম ওভারে। এক ধারাভাষ্যকার বলেন, 'সুনীল গাভাস্কার যে হিন্দিতে ধারাভাষ্য দিচ্ছেন, এটা জানতে পেরে আমি খুবই খুশি। হিন্দিতেই তিনি কত গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ দিচ্ছেন।'

 

 

এই পর্যন্ত তাও ঠিক ছিল। সহকারী ধারাভাষ্যকার সুশীল দোশি এর পর বলতে শুরু করেন. 'প্রত্যেক ভারতীয়ের হিন্দি জানা উচিত। এটা আমাদের মাতৃভাষা। কোনও ভাষাই এর থেকে বড় হতে পারে না।' সঙ্গে তিনি জোড়েন, 'কেউ যদি বলে যে ক্রিকেটার হয়ে গিয়েছে বলে তাঁরা হিন্দিতে কথা বলতে পারবে না, তাহলে তাঁর দিকে আমি অত্যন্ত ক্রুদ্ধভাবে দেখি। তুমি ভারতে থাকছ যখন অবশ্যই তোমাকে হিন্দি জানতে হবে।'

বিসিসিআই ধারাভাষ্যকারের এ হেন মন্তব্যে স্বভাবতই সমালোচনার ঝড় ওঠে। সোশ্যাল মিডিায় অনেকেই মনে করিয়ে দেন, ভারতের কোনও মাতৃভাষা নেই। যদি ও এ বিষয়ে রাত পর্যন্ত বিসিসিআই-এর তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি।