করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে ত্রস্ত গোটা পৃথিবী। ইংল্যান্ডেও থাবা বসিয়েছে এই মারণ ভাইরাস। ইংল্যান্ডের ক্রীড়া ক্ষেত্রেও ব্যাপক প্রভাব পড়েছে করোনা ভাইরাসের জেরে। স্থগিত রাখা হয়ছে প্রিমিয়ার লিগ, এফএ কাপ, ইংলিশ কাপ সহ সমস্ত ধরনের ঘরোয়া ফুটবল টুর্নামেন্ট। করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন একাধিক ফুটবল দলের প্লেয়ার ও কোচ। এবার করোনার থাবা ব্রিটিশ ক্রিকেটেও। বর্তমান পরিস্থিতি বিচার করে ২৮ মে পর্যন্ত ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে পেশাদার ক্রিকেট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সাত সপ্তাহ দেরিতে শুরু হবে ২০২০ সালের ক্রিকেট মরসুম। 

আরও পড়ুনঃকরোনা সংক্রমণ এড়াতে মানুষকে সতর্ক থাকতে অনুরোধ করা হল চেন্নাই সুপার কিংসের তরফ থেকে

দেশের ঘরোয়া ক্রিকেট মরসুমের ভবিষ্যৎ নিয়ে বৈঠকে বসেছিলেন ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। বৈঠকেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ২৮ মে-র পরে শুরু হবে এবছরের ঘরোয়া ক্রিকেট মরসুম।  তবে এই সিদ্ধান্তের আগে ইসিবি কথা বলে নিয়েছে প্রফেশনাল ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে। কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হওয়ার কথা ছিল ১২ এপ্রিল। ইসিবি বলেছে যে কাউন্টি ক্রিকেট শুরু করার জন্য অনেক রকম সম্ভাবনা খতিয়ে দেখছে তারা। জুন, জুলাই বা অগস্টেও তা শুরু করা যায় কিনা, তা ভেবে দেখা হচ্ছে। ইসিবি প্রয়োজনে ফাঁকা গ্যালারিতে খেলা যায় কি না, সেটাও ভাবছে। ম্যাচ কমানোর ভাবনাও রয়েছে। তবে সব কিছুই নির্ভর করছে করোনা ভাইরাসের প্রকোপের বর্তমান পরিস্থথিতি বিচার করে। 

করোনায় আক্রান্ত ইতালির লেজেন্ড ডিফেন্ডার পাওলো মালদিনি, আক্রান্ত তার ছেলেও

আরও পড়ুনঃকরোনা ভাইরাসে আক্রান্ত জুভেন্তাস তারকা পাওলো দিবালা, আক্রান্ত তার বান্ধবীও

শুধু ঘরোয়া সিরিজ নয়, নয়া মরসুমে একাধিক আন্তর্জাতিক ক্রীড়াসূচিও রয়েছে ইংল্যান্ডে। জুন মাসে ঘরের মাঠে ওয়েস্ট উইন্ডিজের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ রয়েছে জো রুটদের। নির্ধারিত সুচি অনুযায়ী ৪ জুন ওভালে রয়েছে প্রথম ম্যাচ। রয়েছে টোয়েন্টি২০ ব্লাস্ট। ইংল্যান্ডের মহিলা দল খেলবে ভারতের বিরুদ্ধে। ইসিবি-র মুখ্য কার্যনির্বাহী অফিসার টম হ্যারিসন বলেছেন, “এই মুহূর্তে আমাদের কাছে যে তথ্য রয়েছে, তাতে ২৮ মে-র আগে পেশাদার ক্রিকেট মরসুম শুরু করা যাচ্ছে না। এতে পরিস্থিতির উপর নজর রাখার সময় মিলছে। পরিবর্তিত মরসুম কী দাঁড়াচ্ছে সেটা দেখতে হবে। যতটা সম্ভব নমনীয় থাকতে হবে আমাদের।” ঘোরায়া তথা আন্তর্জাতিক সিরিজ করার বিষয়ে যথাসাধ্য চেষ্টা ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। কিন্তু করোনা ভাইরাস প্রভাবে যেভাবে দিনের পর দিন আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছে তাতে মরসুম শুরুর সঠিক সময় নিয়ে সন্দিহান ব্রিটিশ ক্রিকেট কর্তারা।