করোনা ভাইরাস সংক্রমণ থেকে বাঁচতে এবার কোয়ারেন্টাইনে গেলেন আরও এক ক্রিকেটার। নিজে থেকেই আইসোলেশনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রাক্তন বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ডারে‌ন স্যামি। পাকিস্তান থেকে সেন্ট লুসিয়ায় নামার পর নিজেকে সবার থেকে বিচ্ছিন্ন রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। এক টুইটে স্যামি লিখেছেন, “সবেমাত্র নামলাম সেন্ট লুসিয়ায়। সবার সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখছি। হাত ধুচ্ছি। মুখ, চোখ ও নাকে হাত দিচ্ছি না। যদিও আমার কোভিড-১৯ টেস্ট নেগেটিভ এসেছে পাকিস্তান ছাড়ার একদিন আগে, তবু প্রিয় জনদের দেখার জন্য ১৪ দিন অপেক্ষা করব।” পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড সম্প্রতি ১২৮ জনের কোভিড-১৯ টেস্ট করিয়েছে। প্রত্যেক টেস্টের ফলাফলই নেগেটিভ এসেছে। যে ক্রিকেটারদের এই টেস্ট করানো হয়েছিল, তার মধ্যে স্যামিও ছিলেন।

আরও পড়ুনঃচুক্তি শেষের আগেই মোহনবাগান ছাড়ছেন কিবু ভিকুনা, কোচ হচ্ছেন কেরালা ব্লাস্টার্সের

ওয়েস্ট ইন্ডিজের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কের পাকিস্তান সুপার লিগ খুব একটা ভাল যায়নি। লিগ লিগ পর্যায়ে তাঁকে প্রথম এগারো থেকে বাদ দেওয়া হয়েছিল। যা নিয়ে বিতর্ক হয়েছিল। পরে তিনি পেশওয়ার জুলমির প্রধান কোচ নিযুক্ত হন। ক্রিকেটার হিসেবে চার ম্যাচে মাত্র এক উইকেট  নেন তিনি। করেন ৪৪ রান। তবে এর বাইরে পাকিস্তানে ভালই কেটেছিল স্যামির। তাঁকে সাম্মানিক নাগরিকত্বও দেওয়া হয়েছে। তবে এবার করোনা আতঙ্ক গ্রাস করেছে ক্যারেবিয়ান তারকাকে। সুরক্ষিত থাকতেই কোয়ারেন্টাইনে গেছেন ড্যারেন সামি।

আরও পড়ুনঃকরোনাভাইরাস কি বাধ্য করবে ধোনিকে অবসর নিতে, চারিদিকে চলছে জল্পনা

আরও পড়ুনঃদেশবাসীর উদ্দেশ্যে বার্তা সুনীল ছেত্রীর, সকলকে সুস্থ ও সচেতন থাকার আবেদন
 
বিশ্ব জুড়ে ক্রীড়া ক্ষেত্রে নিজের থাবা ক্রমশ আরও জোরদার করছে করোনা ভাইরাস। করোনা ভাইরাসে সারা বিশ্বে এখনও পর্যন্ত ১১ হাজারেরও বেশি  হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২ লক্ষ ৮৫ হাজার। ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচতে সারা পৃথিবীতে বন্ধ করা হয়েছে বা স্থগিত রাখা হয়ছে জনপ্রিয় স্পোর্টিং ইভেন্টগুলি। তালিকায় রয়েছে লা লিগা, সিরি এ, প্রিমিয়ার লিগ, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সহ একের পর এক হাই-প্রোফাইল ফুটবল টুর্নামেন্ট। ক্রিকেটর ক্ষেত্রেও করোনার থাবা কম নয়। বন্ধ হয়ে গিয়েছে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা একদিনের সিরিজ,অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড, শ্রীলঙ্কাা-ইংল্যন্ড সহ একাধিক আন্তর্জাতিক সিরিজ। বিভিন্ন দেশের ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগুলিতেও পড়েছে করোনা প্রভাব। ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত রাখা হয়েছে আইপিএল। সেমিফাইনাল, ফাইনালের আগে স্থগিত হয়ে গিয়েছে পাকিস্তান সুপার লিগও। আইসোলেশনে গিয়েছেন একাধিক ক্রিকেটার।
ফের কবে শুরু হবে টুর্নামেন্টগুলি, আদৌ হবে কি না, হলেই বা কিভাবে হবে তা নিয়ে এখনও কোনও সদুত্তর পাওয়া যায়নি আয়োজকদের। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আলোচনার পরই পরবর্তীসিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানা হয়েছে।