রবিবার আসন্ন ক্য়ারিবিয়ান সফরের জন্য ভারতীয় দল ঘোষণা করা হল। টি২০আই, একদিনের ক্রিকেট, টেস্ট - ক্রিকেটের তিন সংস্করণের দলই জানালেন জাতীয় নির্বাচকরা। মহেন্দ্র সিং ধোনি যে থাকবেন না তা আগেই জানা ছিল। কিন্তু তারপরেও এই দিনের দল কি হতে চলেছে তাই নিয়ে আগ্রহ ছিল ভারতীয় ক্রিকেট মহবলে। কিন্তু জাতীয় নির্বাচকদের সাবধানি পদক্ষেপে যারপরনাই হতাশ ভক্তরা।     

বিরাট কোহলিই তিন সংস্করণের দলের নেতৃত্বে রয়েছেন। ধোনির অবর্তমানে উইকেটরক্ষক হিসেবে জায়গা পেয়েছেন ঋষভ পন্থই। দীনেশ কার্তিকের দিকে আর ফিরে তাকানো হয়নি। তবে টেস্ট দলে বাংলার ঋদ্ধিমান সাহাও রয়েছেন। ধোনি ছাড়া পুরো সফর থেকেই বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে, জসপ্রীত বুমরা ও হার্দিক পাণ্ডিয়াকে। আর আঙুলের চোট সারিয়ে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে দলে ফিরেছেন শিখর ধাওয়ানও।

এক নজরে দেখে নেওয়া যাক আসন্ন সিরিজের তিন ধরণের ক্রিকেটের তিনটি দল -

টি২০আই - বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), রোহিত শর্মা (সহঅধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, কেএল রাহুল, শ্রেয়স আইয়ার, মনীশ পাণ্ডে, ঋষভ পন্থ (উইকেটরক্ষক), ক্রুণাল পাণ্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, ওয়াশিংটন সুন্দর, রাহুল চাহার, ভুবনেশ্বর কুমার, খালিল আহমেদ, দীপক চাহার, নভদীপ সাইনি।

টি২০-এর দলের থেকে ৫০ ওভারের ক্রিকেটের দলে খুব বেশি পরিবর্তন হয়নি।

ওডিআই - বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), রোহিত শর্মা (সহঅধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, কেএল রাহুল, শ্রেয়স আইয়ার, মনীশ পাণ্ডে, ঋষভ পন্থ (উইকেটরক্ষক), রবীন্দ্র জাদেজা, কুলদীপ যাদব, যুজবেন্দ্র চাহাল, কেদার যাদব, মহম্মদ শামি, ভুবনেশ্বর কুমার, খলিল আহমেদ , নবদীপ সাইনি।

অস্ট্রেলিয়ার পর ওয়েস্টইন্ডিজেও টেস্ট দলে জায়গা দেওয়া হয়েছে রোহিত শর্মাকে। তবে সহঅধিনায়ক হয়েছেন আজিঙ্কা রাহানেই।

টেস্ট দল  - বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), আজিঙ্কা রাহানে (সহঅধিনায়ক), মায়াঙ্ক আগরওয়াল, কেএল রাহুল, চেতেশ্বর পূজারা, হনুমা বিহারি, রোহিত শর্মা, ঋশভ পন্থ (উইকেটরক্ষক) ঋদ্ধিমান সাহা (উইকেটরক্ষক), আর অশ্বিন, রবীন্দ্র জাদেজা, কুলদীপ যাদব, ইশান্ত শর্মা, মহম্মদ শামি, জসপ্রীত বুমরা, উমেশ যাদব।

আর এই বাছাই নিয়ে মোটেই খুশি নন ভারতীয় সমর্থকরা। ভারতের বিশ্বকাপ বিদায়ের পর থেকেই জল্পনা ছিল সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বিরাট কোহলিকে সরিয়ে রোহিত শর্মাকে নতুন অধিনায়ক করা হবে। তা হয়নি। ভারতীয় ক্রিকেট ভক্তরা যে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে রোহিত শর্মাকেই অধিনায়ক দেখতে চেয়েছেন, তা তাদের প্রতিক্রিয়াতেই স্পষ্ট।

অবশ্য পুরো সিরিজেই বিরাট কোহলিকে বিশ্রাম দেওয়া হবে বলে মনে করা হয়েছিল। কিন্তু অধিনায়কত্ব যাওয়ার আশঙ্কাতেই কিনা জানা নেই, বিরাট তিন ধরণের ক্রিকেটেই খেলবেন।

এছাড়া, প্রশ্ন উঠেছে হার্দিক পাণ্ডিয়াকে বিশ্রাম দেওয়া নিয়েও। অনেকেই হার্দিককে কেন এইরকম একটি সিরিজের সম্পূর্ণ অংশ থেকেই বাদ দেওয়া হল সেই প্রশ্ন তুলেছেন। তবে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে মনীশ পাণ্ডে ও শ্রেয়স আইয়ারের অন্তর্ভুক্তিতে ভারতীয় ব্যাটিং-এর মিডল অর্ডার মজবুত হতে পারে হবলে মনে করা হচ্ছে।

টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে বড় কাঁটা ছিল, ওপেনিং জুটি ও উইকেটরক্ষক হিসেবে পন্থ না ঋদ্ধি কাকে বাছা হবে। লাল বলের ক্রিকেটে ওপেনার হিসেবে কিন্তু নিয়ে যাওয়া হচ্ছে মাত্র দুই ব্য়াটসম্যানকে - কেএল রাহুল ও মাযাঙ্ক আগরওয়াল।