দেশ জুড়ে দ্রুত গতিতে বাড়ছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। কোভিড ১৯-এর দাপটে ত্রস্ত গোটা দেশ। আতঙ্কের মধ্যে গৃহবন্দি হয়ে দিন কাটাচ্ছেন দেশবাসী। করোনার জেরে স্তব্ধ দেশের ক্রীড়া জগতও। করোনা আতঙ্কের মধ্যে ক্রীড়া প্রেমীদের জন্য কিছুটা সুখবর নিয়ে এল ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দল। আগামী বছর ৫০ ওভারের বিশ্বকাপের জন্য সরাসরি যোগ্যতা অর্জন করল মিথালি রাজ, হরমনপ্রীত কউর, স্মৃতি মন্দনারা। বিশ্বকাপে যোগ্যতা অর্জন করার খবর সামনে আসার পরই কিছুটা হলেও খুশির হাওয়া ভারতীয় ক্রিকেট মহলে।
আরও পড়ুনঃ'সবাইকে ঘরের ভিতরে রাখতে কার্ফুই একমাত্র উপায়', বললেন হরভজন সিং

আগামী বছর ৬ ফেব্রুয়ারি শুরু মহিলা বিশ্বকাপ। ফাইনাল ৭ মার্চ। বুধবারই বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা জানায়, ভারতের পাশাপাশি আরও চারটি দেশ ওয়ানডে বিশ্বকাপে সরাসরি অংশ নিতে পারবে। তারা হল অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং অবশ্য আয়োজক নিউজিল্যান্ড।
কিন্তু লকডাউনের মাঝে কীভাবে বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেয়ে গেল ভারতীয় প্রমিলাবাহিনী? আসলে ২০১৭ থেকে ২০২০ পর্যন্ত আইসিসির মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপের মোট তিনটি সিরিজ আয়োজিত হয়নি। তাই এদিন সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থার টেকনিক্যাল কমিটি সিদ্ধান্ত নেয়, ওই সিরিজগুলির পয়েন্ট সবকটি দেশের মধ্যে সমান ভাগে ভাগ করে দেওয়া হবে। এই সময়ের মধ্যে মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপের ২১টি ম্যাচের মধ্যে মোট ১০টিতে জয়ী ভারত। হেরেছে আটটি। শেষবার গত বছর নভেম্বরে ওয়েস্টই ইন্ডিজের বিরুদ্ধে তাদের ঘরের মাঠেই ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জেতেন মিতালি রাজরা। তার আগেই অবশ্য বাতিল করে দেওয়া হয়েছিল ভারত-পাকিস্তান সিরিজ। বিসিসিআই এই সিরিজের অনুমতি না দেওয়ায় তা হয়নি।
আরও পড়ুনঃশোয়েব আখতারের ভিডিও শেয়ার পন্টিংয়ের, বললেন,'আমার খেলা সব থেকে দ্রুত গতির স্পেল'
আরও পড়ুনঃকরোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধকে ‘মাদার অফ অল ওয়ার্ল্ড কাপস’ বলে আখ্যা রবি শাস্ত্রীর
করোনার কোপে বাতিল করতে হয়েছে চ্যাম্পিয়নশিপের দক্ষিণ আফ্রিকা-অস্ট্রেলিয়া এবং শ্রীলঙ্কা-নিউজিল্যান্ড সিরিজ। তাই এবার ঠিক করা হয়, প্রতিটি দলকেই সমান পয়েন্ট ভাগ করে দেওয়া হবে। তাতে অস্ট্রেলিয়া ৩৭, ইংল্যান্ড ২৯, দক্ষিণ আফ্রিকা ২৫ এবং ভারতের ঝুলিতে এল ২৩ পয়েন্ট। প্রথম চারে থেকে সরাসরি বিশ্বকাপে খেলার টিকিট পাকা করলেন হরমনপ্রীতরা। আর আয়োজক হিসেবে ১৭ পয়েন্ট পেয়েও ছাড়পত্র পেল কিউয়ি দল। পাকিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং শ্রীলঙ্কার পয়েন্ট যথাক্রমে ১৯, ১৩ এবং ৫। আইসিসি জানায়, আগামী জুলাইয়ে শ্রীলঙ্কায় বিশ্বকাপ কোয়ালিফায়ার হওয়ার কথা। কিন্তু করোনার জেরে তার ভবিষ্যৎ এখনও অন্ধকারে। কোয়ালিফায়ারের ম্যাচ হলে আরও তিনটি দল বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে। শেষ দুটি বিশ্বকাপে ফাইনালে উঠে হারের মুখ দেখতে হয়েছে ভারতীয় মহিলা দলকে। ২০২১ -কেই পাখির চোখ করে এগোচ্ছিলেন মিথালি রাজরা। সরাসরি বিশ্বকাপের টিকিট পাওয়ায় স্বস্তিতে ওমেনস ইন ব্লু ব্রিগেড। এখন লক্ষ্য একটাই প্রথমবার বিশ্ব জয়।