ভারতীয় দলে জায়গা পাওয়ার জন্য বেশ কিছু বছর নিজেকে প্রমাণ করার পরেও অপেক্ষা করতে হয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট দলের ওপেনার মায়াঙ্ক আগরওয়ালকে। তবে শেষ মেষ তাঁর কাছে এসেছে সুযোগ। আর সেই সুযোগ পেয়ে একের পর এক দুরন্ত ইনিংসের পরিচয় দিতে শুরু করেছেন ভারতীয় ব্যাটসম্যান মায়াঙ্ক আগরওয়াল। ভারতীয় ওপেনার হিসাবে বর্তমানে প্রতিপক্ষ বোলিংকে দাপটের সঙ্গে সামলাছেন টেস্ট ক্রিকেটার। রঞ্জি ট্রফি থেকে শুরু করে বিজয় হাজারে ট্রফি ও বিসিসিআইর ঘরোয়া মরশুমে দুরন্ত ছন্দে ছিলেন মায়াঙ্ক। আর সেই কারণে ভারতীয় দলে ডাক। তবে ডাক পাওয়ার পর টিম ম্যানেজমেন্ট ও ভারতীয় নির্বাচকদের কোনও ভাবেই হতাশ করেননি কর্ণাটকের এই ব্যাটসম্যান। আর সেই সঙ্গে ২২ গজে ব্যাট হাতেই নিজেকে প্রমাণ করেছেন তিনি। পর পর দুই টেস্ট সিরিজে এই নিয়ে দুটি দ্বিশতরান করে ভারতীয় দলে কার্যত জায়গা পাকা করে নিয়েছেন মায়াঙ্ক।

আরও পড়ুন, ২২ গজে বিস্ফোরণ সামির, ভারতীয় পেসারে মুগ্ধ ক্রিকেট বিশ্ব

বাংলাদেশের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে মাত্র তিন দিনে জিতে নিয়েছে কোহলিরা। তিন দিনে ইনিংস ও ১৩০ রানে হারিয়েছে ভারত। তবে এই জয়ের মূল কাণ্ডারি হিসাবে বোলারদের পাশাপাশি অবদান রয়েছে মায়াঙ্কের। প্রথম ইনিংসে দল ৪৯৩ রান করলেও মায়াঙ্কের ব্যাট থেকে বেড়িয়ে এসেছে ২৪৩ রানের ঝড়-ঝড়ে ইনিংস। আর সেই সঙ্গে তিনি মুখিয়ে আছেন আগামী দিনের জন্য। আগামী দিনে আরও ভালো ক্রিকেট খেলার কথাই শুধুমাত্র ভাবছেন এই ভারতীয় ব্যাটসম্যান। এমনিতে বেশ শান্ত প্রকৃতির মানুষ মায়াঙ্ক এমনটাই জানা গিয়েছে তাঁর প্রাক্তন সতীর্থ ক্রিকেটারদের থেকে।

আরও পড়ুন, প্রতিপক্ষের জন্য দুশ্চিন্তা হচ্ছে বিরাটের, এরপর বুমরা এলে কী হবে

মায়াঙ্ক আগরওয়াল বাংলাদেশের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্ট ম্যাচ শেষে বলেন, 'আশা করি আমার এই হাসি বেশ কিছুদিন থাকুক। আরও লম্বা সময়ের জন্য যেন এভাবেই হাসতে পারি। আমি ছয় মারা প্র্যাকটিস করি। তবে টেস্ট ক্রিকেটের সময় সেটা করি না। ভারতের হয়ে খেলার সব সময় ইচ্ছা ছিল। আর সেই স্বপ্নটা পূরণ হয়েছে। বিরাটের মতন সতীর্থ পেয়েছি। সবাইকে দারুণ চাগিয়ে রাখে। একই সঙ্গে ভারতীয় দলে আমার কেরিয়ারের শুরুটা ভালো হয়েছে।' ভারতের হয়ে এত ভালো একটি পারফরম্যান্সের পর মায়াঙ্ক বেশ বাহবা পেয়েছে বাকিদের থেকেও। অধিনায়ক বিরাট থেকে শুরু থেকে প্রাক্তনীদের সুখ্যাতিও পেয়েছেন মায়াঙ্ক। বিরাট মায়াঙ্ককে নিয়ে বলেন, মায়াঙ্ক দারুণ ক্রিকেটার। নিজেকে প্রমাণ করার জন্য নয়। দলকে জেতানোর জন্য দলে এসেছে মায়াঙ্ক। আর সেটাই ও করছে। এটা দারুণ একটা মুহূর্ত ওর জন্য।