আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে হঠাৎই অবসর ঘোষণা করলেন পাকিস্তানের তারকা পেস বোলার মহম্মদ আমির। পিসিবির বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে মাত্র ২৯ বছর বয়সেই ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন আমির। পিসিবির বেশ কয়েক জন তাঁর উপর লাগাতার মানসিক অত্যাচার চালিয়ে গিয়েছে, এমন মানসিক চাপ নিয়ে মাঠে নামা তাঁর পক্ষে সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন মহম্মদ আমির। কিন্তু কেরিয়ারের মধ্য গগনে থাকা অবস্থায় আমিরের অবসর সত্যিই হতবাক করেছে সকলকে।

অবসরের আগে এক সাক্ষাৎকারে মহম্মদ আমির জানিয়েছেন,'দলের পরিবেশ একদমই ভাল নয়। আমাকে ব্রাত্য করা হয়েছে। ৩৫ জন সদস্যের মধ্যেও যখন আমাকে রাখা হয়নি, তখনই আমি এটা বুঝতে পেরেছিলাম। এই ম্যানেজমেন্টের অধীনে আমার পক্ষে খেলা সম্ভব নয়। আমার মনে হয় এখন ক্রিকেট থেকে সরে দাঁড়ানোই ভাল। আমাকে মানসিক ভাবে অত্যাচার করা হয়েছে।' তবে শাহিদ আফ্রিদি ও প্রাক্তন পিসিবি চেয়ারম্যান নাজম শেঠী তার কেরিয়ারে যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছেন তার প্রশংসাও করেছেন আমির।

 

 

পিসিবির বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দেওয়ায় অস্বস্তি বেড়েছে পাক বোর্ডের।  পিসিবির বিজ্ঞপ্তিতে লেখা হয়, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে আমির অবসর নিচ্ছেন, এমন রিপোর্ট সামনে আসার পরেই পিসিবির চিফ এক্সিকিউটিভ ওয়াসিম খান আমিরের সঙ্গে কথা বলেন। ২৯ বছর বয়সী তারকা বোর্ডের চিফ এক্সিকিউটিভকে জানিয়েছেন, তাঁর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার কোনও ইচ্ছা নেই। তাই ভবিষ্যতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য তাঁর নাম বিবেচনা করা হবে না।’ পিসিবি আরও জানায় যে, ‘এটা মহম্মদ আমিরের ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত, পিসিবি যেটাকে সম্মান জানায়। এই মুহূর্তে এই বিষয়ে আর কোনও মন্তব্য করা সম্ভব নয়।’

 

 

আমিরের অবসরের সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর আইসিসির তরফ থেকে তাকে আগামি দিনের জীবনের জন্য শুভেচ্ছা জানানো হয়। তার কেরিয়ারের বিভিন্ন মাইল স্টোনও সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে তুলে ধরেন বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা। 

 

 

মাত্র ১৭ বছর বয়সে আন্তর্জাতিক টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক হয় মহম্মদ আমিরের। যদিও ফিক্সিংয়ে জড়িত থাকার অভিযোগে নির্বাসনে যেতে হয় আমিরকে। নির্বাসনের পর ফের স্বমহিমায় ফেরেন পাক স্পিড স্টার। তার আগুনে বোলিং ও সঙ্গে সুইং যা মুগ্ধ করে ক্রিকেট বিশ্ব। আমির পাকিস্তানের হয়ে ৩৬টি টেস্টে  ১১৯টি উইকেট, ৬১টি ওয়ান ডে-তে ৮১টি ও  ৫০টি টি২০ ম্যাচে ৫৯টি উইকেট। ২০০৯ সালে পাকিস্তানের টি২০ বিশ্বকাপ জয়ী দল ২০১৭ সালের আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ী দলের সদস্য তিনি। এত কম বয়সে আমিরের অবসর হতাশ তার ভক্তরা।