দশ বছর বাদে পাকিস্তানে ফিরে এসেছে টেস্ট ক্রিকেট। কিন্তু খারাপ আবহাওয়ার জন্য সেই ম্যাচের কোনও ফলাফল হল না। ড্র করেই মাঠ ছাড়তে হল দুই দলকে। খারাপ আবহাওয়ার জন্য তৃতীয় দিনের খেলা মাঝপথেই বন্ধ হয়ে যায়। চতুর্থ দিন ভেজা আউট ফিল্ডের জন্য একটাও বল খেলা হয়নি। পঞ্চম দিন খেলা হল কিন্তু দুই দলই জানত ম্যাচ থেকে কোনও ফলাফল আসবে না। প্রথম ইনিংসে ছয় উইকেট হারিয়ে ৩০৬ রান করে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে শ্রীলঙ্কা। অপরাজিত ১০২ রান করেন ধনঞ্জয় ডি’সিলভা। জবাবে ব্যাটিং করতে নেমে পাকিস্তানের ব্যাটসম্যানরাও ঘরের মাঠে ব্যাটিং উপভোগ করলেন। পঞ্চম দিন যখন খেলা শেষ হল তখন পাকিস্তানের স্কোর বোর্ডে ২ উইকেট হারিয়ে ২৫২ রান। তবে ১০ বছর পর ঘরের মাঠে প্রথম টেস্ট খেলে আবেগে ভাসলেন পাক ক্রিকেটাররা। কারণ এই দলের কোনও ক্রিকেটার এতদিন ঘরের মাঠে টেস্ট খেলার সুযোগ পাননি। 

 

 

আরও পড়ুন - সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও পোস্ট, এক হোটেল কর্মীর খোঁজে সচিন তেন্ডুলকর

এদিকে এই নিষ্ফলা ম্যাচ থেকেও একটি রেকর্ড পেল পাকিস্তান। পাক ওপেনার আবিদ আলির এটাই ছিল টেস্ট অভিষেক। আর প্রথম ম্যাচেই অপরাজিত ১০৯ রানের ইনিংস খেললেন তিনি। এর আগে একদিনের ক্রিকেটে অভিষেক ম্যাচেও শতারন করেছিলেন আবিদ। ক্রিকেট বিশ্বে এমন নজির কোনও ব্যাটসম্যানের নেই। চলতি বছরের মার্চ মাসে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে একদিনের ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল আবিদ আলির। ১১২ রানের ইনিংস খেলেছিলেন দুবাইতে। এবার টেস্ট অভিষেকে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টেস্ট অভিষেকে শতরান করলেন এই পাক ব্যাটসম্যান। ম্যাচ সেরাও হলেন তিনি। আবিদের পাশাপাশি আরও একটা শতারন করলেন বাবর আজম। ঘরের মাঠে এটাই প্রথম শতরান বাবরের। 

 

 

আরও পড়ুন - টি-২০ বিশ্বকাপে দলে চান তারকা ক্রিকেটারকে, কোচ বাউচার নিজেই নিচ্ছেন উদ্যোগ

২০০৯ সালের আতঙ্ক কাটিয়ে ২০১৯ সালে আবার পাকিস্তানের মাটিতে পা রেখেছিল শ্রীলঙ্কা। প্রথমে একদিনের সিরিজ আর এবার টেস্ট সিরিজ। রাওয়ালপিন্ডির পিন্ডি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে কড়া নিরাপত্তার মধ্যে ম্যাচ হয়েছে। নিরাপত্তার দিকে যাতে খামতি না থাকে তার জন্য ম্যাচের টিকিটও কম বিক্রি করা হয়েছিল। সফল ভাবে প্রথম টেস্ট আয়োজনের পর এবার ১৯ তারিখ থেকে করাচির ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে হবে দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচ। 

আরও পড়ুন - পাকিস্তান যেতে বাধ্য করা হবে না ক্রিকেটারদের, বলছেন বাংলাদেশ বোর্ডের প্রধান