অধিনায়ক থাকাকালীন প্রায় দেড় দশক পর পাকিস্তানে ভারতীয় দলকে নিয়ে যেতে বিসিসিআই-কে রাজি করিয়েছিলেন সৌরভ। আর এখন তিনি নিজেই বিসিসিআই-এর মসনদে। ফলে ভারত- পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক ক্রিকেট পুরোদমে শুরু করার জন্য ফের একবার সৌরভই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারেন বলে মত প্রাক্তন পাক অধিনায়ক রশিদ লতিফের। 

এই লতিফই অবশ্য কয়েকদিন আগে সৌরভের দেওয়া চার দেশের একদিনের টুর্নামেন্ট-এর প্রস্তাব ফ্লপ হবে বলে মন্তব্য করেছিলেন। কিন্তু পাকিস্তানের প্রাক্তন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান মনে করছেন, দু' দেশের মধ্যে সম্পর্কের তিক্ততা কাটিয়ে ক্রিকেট খেলা শুরু করার জন্য সৌরভই সক্রিয় ভূমিকা নিতে পারেন। 

পাকিস্তানের একটি সংবাদপত্রকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে লতিফ ভারত- পাক সিরিজ নিয়ে কথা এগনোর বিষয়ে পাক বোর্ডকে সাহায্য করার জন্য সৌরভের কাছে আবেদন জানিয়েছেন। লতিফ মনে করিয়ে দিয়েছেন, ২০০৪ সালে বিসিসিআই সেভাবে না চাইলেও তৎকালীন অধিনায়ক সৌরভের জোরাজুরিতেই পাকিস্তানে খেলতে এসেছিল ভারত। লতিফ বলেছেন, 'একজন ক্রিকেটার এবং বিসিসিআই সভাপতি হিসেবে সৌরভ পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান এহসান মনিকে সাহায্যকে করতেই পারেন।' 

প্রাক্তন পাক অধিনায়ক আরও বলেন, 'যতদিন না ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে পুরোদমে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ শুরু হচ্ছে, ততদিন দু' দেশের পরিস্থিতির উন্নতি হবে না। গোটা বিশ্ব ভারত- পাকিস্তানের খেলা দেখতে চায়।'

আরও পড়ুন- দানিশের দাবি খারিজ ইনজামামের, সৌরভের নাম টানলেন প্রাক্তন পাক অধিনায়ক

ষোল বছর আগের ঘটনা মনে করিয়ে লতিফ বলেন, '২০০৪ সালে সৌরভই খেলোয়াড়দের এবং বিসিসিআই- কে রাজি করিয়ে পাকিস্তান সফরে এসেছিল। ওটা ভারতের কাছে একটা স্মরণীয় সফর হয়ে আছে কারণ দীর্ঘ দিন পরে ওরা এ দেশে এসে বড় জয় পেয়েছিল।'

২০০৪ সালে সৌরভের অধিনায়কত্বেই পাকিস্তানে গিয়ে পাঁচ ম্যাচের একদিনের সিরিজ ৩-২ ব্যবধানে জেতে ভারত। অন্যদিকে টেস্ট সিরিজেও ২-১ ব্যবধানে পাকিস্তানকে হারিয়েছিল সৌরভের টিম ইন্ডিয়া।

দীর্ঘদিন পরে ফের একবার পাকিস্তানের মাটিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরেছে। ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ২-০ ব্যবধানে টেস্ট সিরিজ জিতেছে পাকিস্তান। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে ভারত- পাক দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হওয়ার সম্ভাবনা যে ক্ষীণ, তা হয়তো লতিফও জানেন। তবু তাঁর এই প্রস্তাবে সৌরভ কীভাবে সাড়া দেন, দু' দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদেরই সেদিকে নজর থাকবে। দু' দেশের মধ্যে সম্পর্কের অবনতির কারণে এই মুহূর্তে আইসিসি টুর্নামেন্ট ছাড়া ক্রিকেট মাঠ ভারত- পাকিস্তান মুখোমুখি হয় না।