জর্জ ফ্লয়েডের হত্যাকাণ্ডর পর থেকে ঘটে যাওয়া একের পর এক প্রতিবাদের ঘটনা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে যে সারা পৃথিবী জুড়ে বর্ণবৈষম্যের মাত্রা কতটা প্রকট হয়ে উঠেছিল। বিভিন্ন মহল থেকে ওই ঘটনার পর বর্ণবৈষম্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়ে উঠেছে। অনেক কৃষ্ণাঙ্গ ক্রিকেটার এই বর্ণবৈষম্যের ঘটনার বিরুদ্ধে আওয়াজ উঁচু করে জানিয়েছেন যে তারাও স্বীকার হয়েছে বর্নবিদ্বেষের। দেখে নেওয়া যাক এমন পাঁচটি ঘটনা। 

আরও পড়ুনঃপ্রথম ম্যাচ থেকেই খেলবেন মেসি,জানিয়ে দিলেন বার্সা কোচ

আরও পড়ুনঃ'সৌরভকে হুমকি সচিনের,দিয়েছিলেন কেরিয়ার শেষ করে দেওয়ার হুঁশিয়ারী'

• গত নভেম্বরে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট ম্যাচ খেলতে গিয়ে বর্নবিদ্বেষের শিকার হয়েছিলেন জোফ্রা আর্চার। মাউন্ট মাঙ্গানিউ তে টেস্টের শেষ দিনে প্যাভিলিয়নে ফেরার সময় গ্যালারি থেকে এক দর্শক তার বিরুদ্ধে বর্ণবৈষম্যমূলক মন্তব্য করেন। পরে অবশ্য সেই ২৮ বছর বয়সী দর্শককে ২ বছরের জন্য নিউজিল্যান্ডের সকল স্টেডিয়াম থেকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়। কিন্তু ওই ঘটনায় যথেষ্ট আহত হয়েছিলেন আর্চার। তাই এই মুহুর্তে বর্ণবৈষম্যের বিরুদ্ধে গড়ে ওঠা আন্দোলনে গলা মিলিয়েছিলেন তিনি। 

• দক্ষিণ আফ্রিকান অল-রাউন্ডার আন্ডিল ফিলেনকাও-কে তার রং নিয়ে বিদ্রুপ করে ডেকেছিলেন প্রাক্তন পাকিস্তানি অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। তার জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়তে হয় তাকে। আইসিসির তরফ থেকেও তাকে চারটি ম্যাচের জন্য ব্যান করা হয়। পরবর্তীকালে আন্ডিল-এর সাথে দেখা করে ঘটনাটির জন্য দুঃখপ্রকাশ করেন সরফরাজ। 

• অনেক ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড়ই বর্নবিদ্বেষের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন তাদের মধ্যে অন্যতম একজন হলেন প্রাক্তন ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক ড্যারেন সামি। তিনি জানিয়েছেন আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে খেলার সময় তাকে কালু বলে ডাকা হতো। তখন তিনি তার মানে জানতেন না কিন্তু এখন জানেন আর জানার পর থেকেই ক্ষোভে ফুসছেন। তাকে এবং থিসারা পেরেরাকে এমন ভাবে অনেকে ডেকেছিলেন বলে জানিয়েছেন। বর্ণবৈষম্য নিয়ে আইসিসি কে নিজের অবস্থান পরিষ্কারও করতে বলেন সামি। 

• ২০০৬ এ প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ডিন জোন্স কমেন্ট্রি করার সময় হাশিম আমলা কে আতংকবাদী বলে মন্তব্য করেন। কুমার সাঙ্গাকারার ক্যাচ নেওয়ায়, হাশিম আমলার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন আতঙ্কবাদী উইকেট নিয়েছে। এর পর তাকে পড়তে হয়েছিল কড়া সমালোচনার মুখে। তাকে কমেন্ট্রি থেকেও ছেটে ফেলা হয়েছিল। পরে নিজেই এই ঘটনার জন্য দুঃখপ্রকাশ করেন তিনি। 

• প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ড্যারেন লেমান-কেও সমালোচিত হতে হয়েছে তার বর্নবিদ্বেষী মন্তব্যের জন্য। ২০০৩ এ  গাব্বায় রানআউট হয়ে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটারদের গায়ের রং নিয়ে অত্যন্ত আপত্তিজনক মন্তব্য করেন তিনি ড্রেসিংরুমে এসে। যার জন্য পরবর্তী কালে তাকে কড়া সমালোচনার মুখে পড়তে হয়। তিনি নিজেও সেই ঘটনাকে তার সবচেয়ে বড় ভুল বলে মন্তব্য করেছেন। শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক এবং খেলোয়াড়ের কাছে তিনি দুঃখপ্রকাশও করেছেন এর জন্য।

আরও পড়ুনঃদেউলিয়া হতে বসা ক্লাব কিনে নজির গড়লেন এই 'হটেস্ট ফুটবল এজেন্ট'