আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল বা আইসিসি-র তরফ থেকে চলতি বছরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে ধোঁয়াশা বজায় রাখা হয়েছে। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকে তাদের চেয়ারম্যান কার্ল এডিংস এই ব্যাপার নিয়ে সম্প্রতি মুখ খুলেছিলেন। তার মতে এই সময় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করার আশা পুরোপুরি অবাস্তব একটি আশা। অনেকে এই ব্যাপারটি বিসিসিআইয়ের পক্ষে ইতিবাচক বলে মন্তব্য করেছেন। ওই ফাঁকা সময়টুকুর মধ্যে তারা আইপিএল আয়োজন করতে পারেন বলে মনে করছেন অনেকে। 

আরও পড়ুনঃদর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে আইপিএল খেলা হতাশাজনক,মনে করেন ইরফান পাঠান

প্রায় ২ মাসেরও বেশি সময় জুড়ে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের জেরে সারা বিশ্ব জুড়ে খেলাধুলা বন্ধ ছিল পুরোপুরি। তারপর গত একমাসের মধ্যে ধীরে ধীরে কিছু কিছু খেলাধুলো পুনরায় শুরু হলেও এই মুহুর্তে ক্রিকেট কবে শুরু হবে তা একেবারে নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না। অক্টোবর-নভেম্বর মাসে চলার কথা ছিল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের। কিন্তু মহামারীর ঝুঁকি নিয়ে ১৫ টি দলকে অস্ট্রেলিয়ায় আনা হবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। 

আরও পড়ুনঃতেন্ডুলকর লেন,কোহলি মোড় বা কপিল দেব স্ট্রিটে হতেই পারে আপনার স্বপ্নের বাড়ি

আরও পড়ুনঃতাহলে কি ২৬ সেপ্টেম্বর থেকেই শুরু হতে চলেছে আইপিএল

শেষপর্যন্ত যদি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন না করা যায় তবে সেই সময় আইপিএল আয়োজন করা যাবে কিনা তা খতিয়ে দেখছে বিসিসিআই। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার চেয়ারম্যানের সাম্প্রতিক মন্তব্যর পর সেই আশা আরও জোরদার হয়েছে। শোনা গিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এবং আইসিসির সঙ্গে আলাদা আলাদা করে এই ব্যাপারে আলোচনায় বসবে বিসিসিআই। দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে হলেও আইপিএল আয়োজন করতে অসুবিধা হবে না বলেই জানা গিয়েছে।