মহেন্দ্র সিং ধোনি না বিরাট কোহলি, কে বড় অধিনায়ক? এই নিয়ে বিতর্কে চলতেই থাকে দুই তারকার অনুগামী ভক্তদের মধ্যে। ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ থেকে প্রাক্তন ক্রিকেটাররাও প্রায়শই অংশ নেন এই বিতর্কে। ধোনির যোগ্য উত্তরসূরি কি বিরাট কোহলি হয়ে উঠতে পরেছেন তা নিয়ে চলে বিতর্ক। অধিনায়ক হিসেবে দেশকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ, আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি দিয়েছেন ধোনি। কিন্তু কোহলি অস্ট্রেলিয়া সফরে গিয়ে টেস্ট সিরিজ জয় ছাড়া কোনও আইসিসি ট্রফিতে দেশকে সাফল্য এনে দিতে পারেননি কোহলি। 

আরও পড়ুনঃঐতিহাসিক মোহনবাগান দিবসে আবোগঘন বার্তা দিয়ে শুভেচ্ছা জানাল ফিফা

তবে সুরেশ রায়না কিন্তু মনে করেন ধোনির উত্তরসূরি হওয়য়ার ক্ষমতা রয়েছে এক ভারতীয় ক্রিকেটারের মধ্যে। তিনি ইন্য কেউ নন, বিরাট কোহলির ডেপুটি রোহিত শর্মা। এক সাক্ষাৎকারে সুরেশ রায়না বলেছেন,'আমি বলব রোহিত ভারতীয় ক্রিকেটের পরবর্তী ধোনি। আমি তাকে নেতৃত্ব দিতে দেখেছি। সে খুব শান্ত থাকে। সকলের কথা শুনতে পছন্দ করে। ক্রিকেটারদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস জোগাতে পারে। আর সবচেয়ে বড় কথা সে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে পছন্দ করে। যখন একজন অধিনায়ক দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেয় এবং ড্রেসিংরুমের পরিবেশকে সম্মান করে তখন তার আর অন্য কিছুর প্রয়োজন হয় না।' এছাড়াও সুরেশ রায়না বলেছেন,'রোহিত দলের সবাইকেই অধিনায়ক ভাবে। আমি তাকে দেখেছি। যখন আমরা এশিয়া কাপ জিতি। আমি তার নেতৃত্বে খেলেছিলাম। আমি দেখেছি শার্দুল ঠাকুর, ওয়াশিংটন সুন্দর, যুজবেন্দ্র চাহালের মতো তরুণ ক্রিকেটারদের সে কীভাবে আত্মবিশ্বাসী করে তোলে। মহেন্দ্র সিং ধোনির পর অন্যতম সেরা এবং দুর্দান্ত অধিনায়ক। আইপিএল অবশ্য বেশিবার জিতেছে সে। তবে আমি বলব তারা দুজনেই প্রায় একই রকম।'

আরও পড়ুনঃঘুমের মধ্যে পাবজি গেম নিয়ে কথা বলেন ধোনি, জানালেন সাক্ষী

আরও পড়ুনঃভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলির সিংহাসন ছিনিয়ে নেওয়ার অপেক্ষায় রোহিত শর্মা

৪ বার আইপিএল জিতে নিজের অধিনায়কত্বের পরিচয় দিয়েছেন রোহিত শর্মা। সবথেকে বেশিবার আইপিএল জয়ী অধিনায়কের শিরোপাও রয়েছে হিটম্যানের দখলে। এছাড়াও স্টপগ্যাপ অধিনায়ক হিসেবেও ভারতীয় দলের দায়িত্ব সামলেছেন রোহিত শর্মা। ২০১৮ সালে রোহিতের অধিনায়কত্বেই এশিয়া কাপ ও নিধহাস ট্রফি জিতেছিল ভারতীয় দল। এই সকল কারণ ও ঠান্ডা মাথায় অধিনায়কত্বের দায়িত্ব সামলানোর জন্যই রোহিত শর্মাকে ধোনির যোগ্য উত্তরসূরি হিসেবে বেছে নিয়েছেন সুরেশ রায়না।