রাজকোটের নতুন স্টেডিয়ামে চলছে হাড্ডাহাড্ডি রঞ্জি ফাইনাল। ফাইনালে মুখোমুখি বাংলা এবং সৌরাষ্ট্র। হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে দুই প্রতিপক্ষের। দুই দলেই রয়েছে ভারতের টেস্ট দলের সদস্য খেলোয়াড়রা। ফলে ম্যাচটি পেয়েছে অন্য মাত্রা। নিজেদের ঘরের মাঠে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় চেতেশ্বর পূজারার সৌরাষ্ট্র। 

প্রথম দিনের প্রথম ইনিংসে টসে জেতার সুবিধা নিয়ে ম্যাচে দখল নিয়েছিল সৌরাষ্ট্র। বড় একটি পার্টনারশিপ হয় তাদের ওপেনারের মধ্যে। রাজকোটের পাটা উইকেট তখন ব্যাটসম্যানদের স্বর্গ। বাংলার পেস বোলিং কোনো সমস্যা তৈরি করতে পারেনি সৌরাষ্ট্রের ওপেনারদের জন্য। শেষ পর্যন্ত ৮২ রানে সৌরাষ্ট্রকে প্রথম ধাক্কা দেন চলতি মরশুমে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা শাহবাজ আহমেদ। সিলি পয়েন্টে পরিবর্ত হিসাবে ফিল্ডিং করতে নামা অভিষেক রমনকে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান ওপেনার হার্ভিক দেশাই। দ্বিতীয় এবং তৃতীয় সেশনে ম্যাচে প্রত্যাবর্তন করে বাংলার বোলিং। দিনের শেষে ২০৭ রান করে ৫ উইকেট খোয়ায় সৌরাষ্ট্র। অসাধারণ বোলিং করে প্রথম দিনে ৩ উইকেট তোলেন আকাশ দীপ। নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে ১ টি উইকেট নেন ঈশান পোরেল।

প্রথম দিন নট-আউট থেকে দ্বিতীয় দিনে ব্যাট করতে নামেন অর্পিত ভাষাভড়া। তার সাথে নামেন প্রথমদিনে গরমের জন্য অসুস্থ হয়ে মাঠের বাইরে চলে যাওয়া চেতেশ্বর পূজারা। অত্যন্ত ধীরে ও ধৈর্যের সাথে ব্যাটিং করেন তারা। বাংলার বোলারদের সঙ্গে ধৈর্য্যের লড়াইয়ে নামেন পূজারা। সেই লড়াইয়ে প্রথম সেশনের পর জয়ী তিনিও। দু ঘন্টায় বাংলার বোলারদের ম্যাচে দখল নেওয়ার কোনো সুযোগই দেন নি তিনি। মাঝে একবার তার প্রতি এলবিডব্লিউ এর অ্যাপিল উঠলেও তা বাতিল হয়ে যায়। তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন অর্পিত। অর্ধশতরান করে অপরাজিত রয়েছেন তিনিও। প্রথম সেশনের পর আর একটিও উইকেট না খুইয়ে ২৭৮ রান তুলেছে তারা।