সম্পূর্ণ না বদললালেও ভারতীয় ক্রিকেট  বোর্ডের বর্তমান নির্বাচক কমিটিতে দু'টি বদল আসছেই। মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় সরে যেতে হচ্ছে নির্বাচন কমিটির প্রধান এমএসকে প্রসাদকে। বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় নিজেই এ কথা জানিয়ে দিয়েছেন। 

একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি দৈনিককে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অবশ্য সৌরভ স্পষ্ট করে দিয়েছেন, বর্তমান কমিটিতে থাকা তিন নির্বাচক দেবাং গাঁধী, যতীন পরাঞ্জপে এবং শরণদীপ সিং আপাতত দায়িত্বে থেকেই যাচ্ছেন। কারণ তাঁদের মেয়াদ পূর্ণ করতে এখনও এক বছর বাকি। কিন্তু নির্বাচক কমিটির চেয়াম্যান প্রসাদের মতোই মেয়াদ পূরণ করে ফেলায় সরে যেতে হচ্ছে আর এক নির্বাচক গগন খোড়াকেও। সৌরভ জানিয়েছেন, খুব শিগগিরই এই দু'জনে স্থলাভিষিক্ত কারা হবেন, তা জানিয়ে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন- এখনও তিনি ক্যাপ্টেন, বুমরার সমস্যা মিটিয়ে প্রমাণ করলেন সৌরভ

নির্বাচক কমিটির প্রধান হিসেবে এমএসকে প্রসাদের ভূমিকা নিয়ে একাধিকবার প্রশ্ন উঠেছে। বিশেষত বিশ্বকাপের দল নির্বাচন নিয়ে সমালোচনার মুখে  পড়তে হয়েছিল বর্তমান নির্বাচন কমিটিকে। সৌরভ অবশ্য প্রসাদ এবং খোড়ার জায়গায় কারা আসবেন, তা নিয়ে মুখ খুলতে রাজি হননি। তিনি জানান, বর্তমান সংবিধান অনুযায়ী নতুন নির্বাচকদের বেছে নেবে ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটি বা সিএসি। তিন দিনের মধ্যেই সিএসি- র সদস্যদের বেছে নেওয়া হবে।

তাঁর প্রস্তাবিত চার দেশীয় একদিনের প্রতিযোগিতা নিয়েও মুখ খুলেছেন সৌরভ। তিনি জানিয়েছেন, আপাতত বিষয়টি প্রস্তাবের আকারেই  রয়েছে। ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ছাড়াও একটি শক্তিশালী দল নিয়ে এই টুর্নামেন্ট করার ভাবনা রয়েছে বিসিসিআই সভাপতির। সৌরভ অবশ্য মেনে নিয়েছেন, ভবিষ্যতের সূচি দেখে নিয়েই এই পরিকল্পনা নিয়ে এগোতে হবে। তবে তাঁর লক্ষ্য যে একটি প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক টুর্নামেন্টের আয়োজন করা, সেটা বুঝিয়ে দিয়েছেন মহারাজ। তিনি মনে করছেন, পিঙ্ক বল টেস্ট- এর মতো চারটি শক্তিশালী দেশ নিয়ে সুপার সিরিজ করাতে পারলে ক্রিকেটের প্রতি দর্শকদের আকর্ষণ আরও বাড়বে।