সব লড়াইয়ের অবসান ঘটিয়ে রবিবার দুপুরে শেষ নিঃশ্সাবস ত্যাগ করলেন কিংবদন্তী অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। গতকাল থেকেই তাঁর অবস্থার  ব্যাপক অবনতি হয়। একের পর এক অঙ্গ বিকল হতে শুরু করে। আশাও ছেড়ে দিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল  অলৌকিক কোনও ছাড়া প্রবীণ অভিনেতাকে বাঁচানো সম্ভব নয়। কিন্তু ৪০ দিনের লড়াইের পর দীপাবলির আলোর রোশনাইকে অন্ধকারে পরিণত করে চিরবিদায় নিলেন ক্ষীদদা। 

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের প্রয়াণের খবরে শোকস্তব্ধ সব মহল। শিল্পী, রাজনীতি থেকে খেলজগৎ সব স্তর থেকেই শোক বার্তা জানান বিশিষ্ট জনেরা। বাংলা সিনেমা জগতের অপূরণীয় ক্ষতি বলে মত তাদের। বড় পরদ্রা ক্ষীদদার প্রয়াণে শোকবার্তা দেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক তথা বর্তমান বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। প্রয়াত কিংবদন্তি অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে শ্রদ্ধা জানিয়ে টুইট করলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি লিখেছেন,‘আপনার অবদান বিশাল। এ বার শান্তিতে থাকুন’। সৌমিত্রর সঙ্গে নিজের ছবিও পোস্ট করেছেন তিনি।

 

 

গত ৬ অক্টোবর করোনা আক্রান্ত হয়ে কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হন কিংবদন্তী অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। বিগত ৪০ দিনে কখনও তাঁর শারীরিক অবস্থার উন্নতি বা অবনতি হয়েছে। মাঝখানে চিকিৎসায় সাড়াও দিচ্ছিলেন সকলের প্রিয় 'ফেলু মিত্তির'। সবাই আশা করেছিলেন এই লড়াইও জিতে আসবেন 'ফেলুদা'। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না। সৌমিত্র চট্টোপাধ্য়ায়ের প্রয়াণে শোক প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীও।