দেশের করোনা পরিস্থিতির বাড়বাড়ন্তের ফলেই বিদেশের মাটিতে আইপিএল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বিসিসিআই। আরব আমিরশাহিকেই সুরক্ষিত জায়গা হিসেবে বেছেনিয়েছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। সবকিছু পাককাপাকি হওয়ার পর ঠিক হয় ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে আইপিএলের ১৩ তম মরসুম। শেষ হবে ১০ নভেম্বর। বর্তমানে মরুদেশে অনুশীলনে ব্যস্ত আইপিএলের সবকটি দলই। আইপিএলের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে ইতিমধ্যেই আরবে পৌছে গিয়েছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার পাশাপাশি এমিরেটস ক্রিকেট বোর্ডের কর্তাদের সঙ্গে আলোচনাও সারলেন তিনি।

আরব আমিরশাহি যাওয়ার সময়ও সোশ্যাল মিডিয়ায় বিমানবন্দর থেকে ছবি শেয়ার করেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। এবার মরুদেশে গিয়ে 'দাদর' ভঙ্গিমায় খতিয়ে দেখলেন সব কিছু।  প্রথমে শারজা ক্রিকেট স্টেডিয়াম পরিদর্শন করে দেখলেন বিসিসিআইয়ের সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ঘুরে দেখলেন মাঠ, ড্রেসিংরুম থেকে শুরু করে সবকিছুই। শুধু পরিদর্শন নয়, এমিরেটস ক্রিকেট বোর্ডের কর্তাদের সঙ্গে কয়েক দফায় বৈঠকও করেছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট। 

শুধু শারজা নয়, অন্যান্য মাঠও ঘরে দেখবেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। বুধবার আবুধাবিতে পৌঁছবেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট। ক্রিকেটারদের জন্য তৈরি "বায়ো বাবল" সহ সমস্ত পরিকাঠামো খতিয়ে দেখছেন বোর্ড প্রেসিডেন্ট। মূলত টুর্নামেন্ট শুরুর আগে করোনা আবহে স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত যাবতীয় নিয়ম সঠিকভাবে পালন হচ্ছে কিনা সেটাই খতিয়ে দেখছেন সৌরভ। আবুধাবিতে গিয়েও সেখানকার কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক ককতে পারেন বোর্ড সভাপতি। আইপিএলের আয়োজন ও নিরাপত্তার বিষয়ে কোনও রকম খামতি রাখতে নারাজ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

১৯ সেপ্টেম্বর আইপিএলের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হতে চলেছে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ও চেন্নাই সুপার কিংস। উদ্বোধনী ম্যাচেও উপস্থিত থাকবেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। প্রথম কয়েকটি ম্যাচেও মাঠে থাকতে পারেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট। সব কিছুই নিজের 'দাদাগিরির' ভঙ্গিতেই তদারকি করছেন তিনি। ২৩ সেপ্টেম্বর ভারতে ফিরে আসার কথা রয়েছে সৌরভের। তারপর ফের আইপিএলের ফাইনালের আগে আরব আমিরশাহি যাওয়ার কথা রয়েছে তার। ফাইনালে মাঠেও থাকবেন তিনি। করোনা পরিস্থিতিতে এইবছর আইপিএল আয়োজন করাই ছিল কঠিন চ্যালেঞ্জ। এখন সেই চ্যালেঞ্জ সুষ্ঠুভাবে শেষ করাই লক্ষ্য সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের।