করোনাভাইরাসের কারণে স্বাভাবিক জনজীবন বিপর্যস্ত বহুদিন ধরে। লক্ষ লক্ষ মানুষ এই ভাইরাসের কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন। আক্রান্ত হয়েছেন তার চেয়েও কয়েকগুণ বেশি মানুষ। সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়েছেন বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত কর্মীরা। তাদের মাসিক মাইনে তারা সময়মতো পাবেন কিনা তা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। এই অবস্থায় সুরেশ রায়না এবং হরভজন সিং আবেদন জানিয়েছেন এই কঠিন পরিস্থিতিতে অসহায়, দুঃস্থ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর। 

আরও পড়ুন-রবি শাস্ত্রীর কথা শুনেই কেরিয়ারের প্রথম টেস্টের পর সাফল্য পেয়েছিলেন সচিন

গত মাসের থেকেই ভারতে লকডাউন চলছে। সাধারণ মানুষ শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে মহামারীর আরও ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনাকে আটকাতে চাইছেন। এখনও অবধি ৩ রা মে অবধি লকডাউন চলার কথা। বর্তমানে ভারতীয় দলের বাইরে থাকা সুরেশ রায়না সকলকে আবেদন জানিয়েছেন এই সময়টুকু তাদের বাড়ির কাজের লোকের মাইনে দিয়ে দেওয়ার জন্য। নয়তো তাদের পক্ষে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে মোকাবিলা করা আরও কঠিন হয়ে উঠবে বলে তিনি মনে করেন। 

আরও পড়ুনঃবিশ্বকাপের মেডেল হারিয়ে ফেলেছেন জোফরা আর্চার, দিন-রাত খুঁজছেন পাগলের মত

আরও পড়ুনঃসুযোগ পেলে বিশ্বকাপ সেমিফাইনালের রেজাল্ট বদলে দিতাম, জানালেন কে এল রাহুল

ভারতীয় অফস্পিনার হরভজন সিং বলেছেন যে এই সময় আমাদের যার সাথে লড়াই তার সম্পর্কে আমরা বিশদে না জানলেও। কিন্তু সকলে এটা জানে যে বাড়িতে থেকেই একমাত্র এই অদৃশ্য শত্রুর মোকাবিলা করা সম্ভব। প্রধানমন্ত্রী সকলের কাছে আবেদন করেছেন যাতে কেউ বাড়ির বাইরে না বেরোয়। এখন সকলের সেই আহ্বানে সাড়া দিয়ে বাড়িতে থাকাটাই বাঞ্চনীয়। এই সময়টা সকলের উপলব্ধি করার যে টাকা উপার্জনটাই জীবনের সবকিছু নয়। বরং এই সময়ে বিপদগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ানোটাই সকল মানুষের একমাত্র কর্তব্য, জানিয়েছেন হরভজন।