চিনের মোবাইল প্রস্তুতকারী কোম্পানি ভিভোর সঙ্গে এবছরের মত আইপএলের টাইটেল স্পনসরের চুক্তি ভঙ্গ করেছে বিসিসিআই। দেশ জুড়ে চিন বিরোধাী আবহের জন্যই শেষ পর্যন্ত চাপের কাছে নতি স্বীকার করে এই সিদ্ধান্ত নিয়ে হয়েছে বিসিসিআইকে। ফলে এখনও পর্যন্ত টাইচেল স্পনসর বিহীন রয়েছে আইপিএলের ২০২০-র মরসুম। তবে নতুন স্পনসর খোঁজার বিষয়ে কথা বার্তা অনেক কোম্পানির সঙ্গেই এগিয়েছে বলে জানানো হয়েছে বিসিসিআইয়ের তরফে। খুব শীঘ্রই সেই নাম ঘোষণা করা হবে বলে জানানো হয়েছিল বোর্ডের তরফে।

আরও পড়ুনঃকরোনা মোকাবিলায় ফের মানবিক মেসি, আর্জেন্টিনা বিভিন্ন হাসপাতালে দিলেন ভেন্টিলেটর

যদিও এক কদম এগিয়ে আইপিএলের টাইটেল স্পনসর ঘোষণা করার দিন জানিয়ে দিলেন আইপিএলের গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ব্রিজ্শ প্যাটেল।  আইপিএলের টাইটেল স্পনসর হওয়ার জন্য লাইনে রয়েছে একাধিক নামকরা সংস্থা। তাদের মধ্যে রয়েছে রিলায়েন্স জিওর নাম। ঠিক তোমনই স্টার স্পোর্টসও আগ্রহী বলে শোনা যাচ্ছে। এছাড়া অ্যামাজন, টাটা, ড্রিম ইলেভেন, আদানি, বাইজু'স-এর মতো সংস্থাগুলিও লড়াইয়ে নামতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। তালিকায় কোকা-কোলাও  রয়েছে। স্পনসরের দৌড়ে রয়েছে আদানি গ্রুপও। সোমবারই আইপিএলে লগ্নি করারপ ইচ্ছে প্রকাশ করেছে রামদেবের সংস্থা পতঞ্জলি আয়ূর্বেদও। আইপিএলের টাইটেল স্পনসর হিসেবে চেয়ারম্যান বলেন, সম্ভাবত ১৮ অগস্টের মধ্যে আইপিএলের টাইটেল স্পনসর ঘোষণা করে দেবে বিসিসিআই। 

আরও পড়ুনঃআইপিএলে নতুন 'এইট প্যাক' লুকে নবদীপ সাইনি, মরু দেশে ঝড় তুলতে প্রস্তুত ভারতীয় স্পিড স্টার

আরও পড়ুনঃসদ্যজাতকে কোলে নিয়ে জিভা, তাহলে কি ধোনি-সাক্ষীর পরিবারে নতুন অতিথি, জল্পনা নেট দুনিয়ায়

ইতিমধ্যেই আগ্রহী সংস্থাগুলিকে বিড পেপার জমী দিতে বলেছে বিসিসিআই।  বিড জমা দেওয়ার জন্য সাত দিনের উইন্ডো থাকবে। আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ব্রিজশ প্যাটেল জানিয়েছেন,'যে কোম্পানি আইপিএলের ১৩৩ মরসুমের টাইটেল স্পনসর হিসেবে নিযুক্ত হবেন তাদের সঙ্গে ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ পর্যন্ত চুক্তি হবে। নতুন স্পনসর হিসেবে আবেদন করার ক্ষেত্রে যে কোনও কোম্পানিতে শেষ আর্থিক বছরে ৩০০ কোটি টাকার টার্নওভার থাকতে হবে।' ইলে আইপিএল চেয়ারম্যানের বক্তব্য অনুসারে ১৮ অগাস্ট নতু টাইটেল স্পনসরলপেতে চলেছে ইন্ডিয়া প্রিমিয়ার লিগ।