করোনা ভাইরাস মহামারীর জেরে ক্রিকেট খেলায় সব দেশের মতই ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে। করোনার কারণে বন্ধ ঘরোয়া ও আন্তর্জিতক টুর্নামেন্ট। সেমিফাইনাল ও ফাইনালের আগে স্থগিত হয়ে গিয়েছে পাকিস্তান সুপার লিগও। এই পরিস্থিতিতে বড়সড়  আর্থিক ক্ষতির সম্মখীন হতে হচ্ছে পাকিস্তানকে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর অনেকেই ভারত-পাক সিরিজের কথাও বলেছেন। কিন্তু দুই দেশের রাজনৈতিক সম্পর্কের কথা ভেবে ইন্দো-পাক সিরিজ যে নয়, তা একপ্রকার নিশ্চিত। এই পরিস্থিতিতে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান এহসান মানি পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন,পাকিস্তান ক্রিকেটকে বহাল রাখতে কোনওভাবেই তাদের ভারতের সাহায্যের দরকা নেই। মানির এই বক্তব্যের পরই নতুন করে তৈরি হয়েছে বিতর্ক।
আরও পড়ুনঃলাহোরে তুষারপাত সম্ভব, কিন্তু ইন্দো-পাক সিরিজ নয়, জানালেন গাভাস্কার

২০০৮ সালে মুম্বই হামলার পরই দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ  সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যায়। তারপর থেকে আইসিসির কোনও টুর্নামেন্ট ও এশিয়া কাপ  ছাড়া ২২ গজে মুখোমুখি হয়নি তির প্রতিদ্বন্দ্বী দুই দেশ। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের তরফে এহসান মানি জানিয়েছেন,'আমাদের ক্ষতি হচ্ছে ঠিকই তবে তারা (ভারত) আমাদের পরিকল্পনার মধ্যে নেই। আমাদের তাদের ছাড়া বাঁচতে হবে এবং বেঁচে তাকার জন্য তাদের কোনও রকার নেই। আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই ভারত খেলতে না চাইলে তাদের ছাড়া আমাদের পরিকল্পনা করতে হবে। একবার বা দু'বার তারা আমাদের বিপক্ষে খেলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তবে শেষ মুহুর্তে পিছিয়ে এসেছে'।
আরও পড়ুনঃটেস্টে স্মিথকে কোহলির থেকে এগিয়ে রাখলেন জাহির আব্বাস
আরও পড়ুনঃ২২ বছরের তরুণের সঙ্গে জলকেলিতে নেইমারের মা,অভিসারের ছবি হল ভাইরাল

ক্ষতির সম্মুখীন হয়েও, এহসান মানি সকলকে আশ্বাস দিয়ে বলেছেন,দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক এবং কেন্দ্রীয়ভাবে চুক্তিবদ্ধ এবং ঘরোয়া খেলোয়াড়রা আমি তাদের আশ্বাস দিতে চাই আমরা যতক্ষণ পারব তাদের স্বার্থ রক্ষা করব। পারফরম্যান্স-ভিত্তিক সিদ্ধান্তগুলি বাদ দিয়ে আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া খেলোয়াড়দের জন্য কোনও অস্বাভাবিক বেতন কাটা হবে না। বোর্ড কর্মীদেরও বেতন কাটার পরিকল্পনা আপাতত নেই। ভারতের সঙ্গে অদূর ভবিষ্যতে যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজের কোনও সম্ভাবনা নেই তাও পরিষ্কার করে দিয়েছেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান।