'রাম মন্দির নাহি তো মোদী নাহি' - স্পষ্ট ভাষায় জানাচ্ছেন কম্পিউটার বাবা নামে পরিচিত নামদেও দাস ত্যাগি। মঙ্গলবার থেকে মধ্যপ্রদেশের ভোপালে হাজার হাজার সাধুদের নিয়ে হঠযোগে বসেছেন তিনি। সঙ্গে রয়েছেন কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিং। অথচ একসময় মধ্যপ্রদেশের বিজেপি সরকার এই কম্পিউটার বাবাকেই প্রতিমন্ত্রীর সম্মান দিয়েছিল।

মধ্যপ্রদেশে এখন অবশ্য় পুরোপুরি বিজেপি বিরোধি শিবিরেই রয়েছেন কম্পিউটার বাবা। এদিন যোগ শুরুর আগে ভোপালে যোগ স্থলে কম্পিউটার বাবাকে নিয়ে পুজাও দেন কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিং। বাবাজী দিগ্বিজয় সিং-এর হয়ে প্রচারও করছেন। এইবার মোদীকে হারাতেতাঁর সঙ্গী-সাথীদের নিয়ে এবার হঠযোগ শুরু করলেন। যোগ শুরুর আগে তিনি বললেন, পাঁচ বছরে বিজেপি সরকার রাম মন্দিরও বানাতে পারেনি। তাই মোদী ক্ষমতায় ফিরুন তা চান না তিনি।

কম্পিউটার বাবা অবশ্য কোনওদিনই গেরুয়া শিবিরে বিশেষ আস্থাশীল নন। সবসময় তিনি তাঁর প্রাণপ্রিয় ল্যাপটপটি নিয়ে ঘোরেন বলেই তাঁর  হয়েছে কম্পিউটার বাবা। ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে তিনি মধ্যপ্রদেশ থেকে আপ-এর টিকিটে লড়তে চেয়েছিলেন। সেই সময় তিনি জানিয়েছিলেন গেরুয়া শিবির সাধুদের শুধু নিজেদের স্বার্থে কাজে লাগায়।

এরপর ২০১৮ সালের মার্চে যোগেন্দ্র মোহান্তকে সঙ্গে নিয়ে তিনি নর্মদা নদী বাঁচানোর আন্দোলনে জড়িয়ে পড়েন। সেই সময় মধ্যপ্রদেশে ছিল বিজেপি সরকার। শিবরাজ চৌহান নর্মদার রক্ষণাবেক্ষণের জন্য একটিমিটি গড়ে দেন। সেই সঙ্গে আরও ৪ সাধুর সঙ্গে কম্পিউটার বাবাকেও প্রতিমন্ত্রীর মর্যাদা দিয়েছিল। কংগ্রেস একে তোষণের রাজনীতি বলে কটাক্ষ করেছিল।

এরপর অবশ্য কমলনাথের নেতৃত্বে মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস সরকার আসার পর তাঁকে 'মা নর্মদা, মা শিপ্রা এবং মা মন্দাকিনী নদী ট্রাস্ট'-এর চেয়ারম্যান করা হয়েছে।