পর পর দুইবার হার। গতবারের মতো চুড়ান্ত লজ্জার না হলেও এইবারও দলকে জয় এনে দিতে ব্যর্থ রাহুল গান্ধী। তারপরেও সাংবাদিক সম্মেলনে এসে তিনি বলেছেন, ভালোবাসার হার হয় না। লড়াই চলবেই। কিন্তু সাংবাদিকদের সামনে আসার আগেই নাকি তিনি পদত্যাগের ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন বলে জানা গিয়েছে কংগ্রেস দলের সূত্রে।  
এখনও পর্যন্ত মাত্র ৮৬টি আসনে এগিয়ে রয়েছে ইউপিএ। সরকার গড়ার কোনও সম্ভাবনাই নেই। রাফাল নিয়ে অভিযোগ থেকে 'ন্য়ায়'-এর প্রতিশ্রুতি - রাহুলের কোনও কৌশলই কাজে আসেনি। কংগ্রেস দলের সূত্রে জানা গিয়েছে, এরপরই সাংবাদিক সম্মেলনে আসার আগে ইউপিএ চেয়ারপার্সন সনিয়া গান্ধী ও কংগ্রেস-এর সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভডরার সঙ্গে একান্ত বৈঠক করেন।

সেখানেই দলের হারের দায় নিয়ে সভাপতি পদ ছেড়ে দিতে চান রাহুল, এরকমই খবর। কিন্তু ইউপিএ চেয়ারপার্সন তাঁকে ফলফলের দিনই পদত্যাগ করতে বাধা দেন বলে জানা গিয়েছে। সনিয়া যুক্তি দেন, এতে দলের কর্মী-সমর্থকদের মনোবল ভেঙে যেতে পারে। ওয়ার্কিং কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে তবেই রাহুলকে এই বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি।

আগামী সপ্তাহেই দিল্লিতে জাতীয় কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক হওয়ার কথা। যতদূর জানা যাচ্ছে সেখানে আরও একবার দলের স্টিয়ারিং ছেড়ে দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করবেন কংগ্রেস সভাপতি। ওয়ার্কিং কমিটি মত দিলে ওইদিনই সভাপতির পদ ছেড়ে দেবেন তিনি।