'হুয়া তো হুয়া' - এই ছোট্ট বাক্যবন্ধটাই এখন অস্বস্তিতে ফেলেছে কংগ্রেসকে। একের পর এক বিজেপি নেতা ১৯৮৪ সালের শিখ দাঙ্গা নিয়ে প্রবাসী কংগ্রেস নেতা স্য়াম পিত্রোদার করা মন্তব্য নিয়ে আক্রমণ হানছেন। এবার সেই দলে যোগ দিলেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। দাবি করলেন এর থেকেই কংগ্রেসের মানসিকতাটা স্পষ্ট হয়ে যায়।

সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে নরেন্দ্র মোদী এদিন বলেন, কংগ্রেস বরাবরই শিখ নিধন নিয়ে এই 'হুয়া তো হুয়া' মানসিকতাই লালন করেছে। তিনি বলেন এই কারণেই তখনকার কংগ্রেসী প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী বলেছিলেন, 'যখন কোনও বড় গাছ পড়ে যায়, মাটি তো কাঁপেই'। এই কারণেই নানাবতী কমিশন কমল নাথের দিকে আঙুল তোলার পরও তাঁকে একটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী করেছে কংগ্রেস। এবং এই মানসিকতার জন্যই ঘটনার পর থেকে আজ পর্যন্ত তারা সরকারে থেকে কাউকে শাস্তি দেয়নি।

#WATCH: PM Narendra Modi to ANI on Sam Pitroda's remarks on 1984 riots, "Reflects Congress's mentality. Rajiv Gandhi had said 'when a big tree falls earth shakes'. They even made Kamal Nath incharge of Punjab, now made him MP CM. So don't take this as an individual's statement" pic.twitter.com/V3MOJZMQYe

— ANI (@ANI) May 10, 2019

 

তবে শুধু শিখ দাঙ্গার বিষয়েই নয়, দেশের ক্ষতির বিষয়ে, দেশের অবনতির বিষয়েও কংগ্রেসী মানসিকতা 'হুয়া তো হুয়া' বলেই মন্কতব্য করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কাজেই এই মানসিকতা শুধু ব্যক্তি স্যাম পিত্রোদার তা ভাবলে ভুল হবে। এটা কংগ্রেস দলেরই মানসিকতা।

 

এর আগে নানাবতী কমিশনের রিপোর্টে রাজীব গান্ধীর দফতর থেকেই গুলি চালনার নির্দেশ দিয়েছিলেন বলে সরকারি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে দাবি করেছিল বিজেপি। সেই প্রসঙ্গেই পিত্রোদা জানিয়েছিলেন ওই দাবি তিনি বিশ্বাস করেন না। এরপরই তিনি বলে ওঠেন ১৯৮৪ সালের দাঙ্গা হয়েছিল তো হয়েছিল ('হুয়া তো হুয়া')। এখন তা নিয়ে বলার মানে নেই। মোদী গত ৫ বছরে কী করেছেন তার হিসেব দিন। আর এরপর থেকেই ভারতীয় রাজনৈতিক মহলে আলোচা চলছে ওই 'হুয়া তো হুয়া' নিয়েই।