'ও নাহ গে? একটু দূরে থাকিস', 'ছেলে হয়ে ছেলের গায়ে ঘেষব? গে নাকি আমি?', 'লেজবিয়ানদের মত গায়ে পরিস না তো!' অনায়াসেই এই কথাগুলি বলে ফেলি আমরা। একবারের জন্যও ভাবি না যে, এলজিবিটিকিউ (LGBTQ) সম্প্রদায় বলে একটি বস্তু সমাজে রয়েছে। সরকার এই সম্প্রদায়কে বৈধ করে সম্মানও দিয়েছে। তবে আমরা যতই জিনস, টিশার্ট পরে ক্যান্ডেল মার্চ বেরই আর শপিং মলেই ঘুরি, মান্ধাত্যার আমলে চিন্তাভাবনা সহজে গা থেকে ঝেড়ে ফেলব না। এ কেবল ভারতেই নয়, বিদেশেও ছড়িয়ে। এক কথায় একে হোমোফোবিয়া বলে। 

এই ভাবনাকে চ্যালেঞ্জ করে এগিয়ে এলেন এলিয়ট পেইজ। নামটা আগে কখনও শোনেনি? শুনেছেন তবে এলেন পেইজ নামে শুনেছে। সেই এলেন এখন অতীত। এখন এলিয়টই বর্তমান ও ভবিষ্যৎ। হলিউডের অস্কার মনোনীত তারকা এলিয়ট পেইজ নিজেকে রূপান্তরকামী হিসেবে প্রকাশ করলেন জনসমক্ষে। সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টের মাধ্যমে তিনি জানান, এতদিন অভিনেত্রী হিসেবে কাজ করে এলেও তিনি আদপে একজন রূপান্তরকামী। কঠিন থেকে কঠিনতম রাস্তা পেরিয়ে আজ তিনি সাহস অর্জন করেছেন নিজের আসল পরিচয় গোটা পৃথিবীর কাছে রাখার। ৩৩ বছর বয়সী অভিনেতা জানান, নিজের পরিচয় পরিবর্তনের জন্য তাঁকে সাহায্য করেছে  এলজিবিটিকিউ (LGBTQ) সম্প্রদায়। তাদের সাহায্য ছাড়া এই যাত্রাপথ ছিল অসম্ভব। 

আরও পড়ুনঃঅন্দরমহলের পর্দা সরালেন ঋতু, প্রকাশ্যে এল অসাধারণ কিছু মুহূর্ত

 

 

তিনি লেখেন, "আমার নাম এলিয়ট। নিজেকে খুব ভাগ্যবান মনে করছি এটা লিখে। জীবনের এই জায়গায় পৌঁছে খুব আনন্দিত বোধ করছি। অসংখ্য মানুষ আমায় সমর্থন করে গিয়েছে আজও করছে। আমি একজন রূপান্তরকামী। নিজেকে রূপান্তরকামী হিসেবে খুবই ভালবাসি। নিজের আসল পরিচয় সকলের সামনে আনতে পেরে খুব শান্তি পেলাম। সকল রূপান্তকামী এবং বৃহন্নলা, যারা নিত্যদিন নানা অবমাননা, অপমান সহ্য করছে, আমি তাদের পাশে আছি। আমি তোমাদের ভালবাসি। এই পৃথিবীকে বদলানোর জন্য আমি সবকিছু করতে রাজি আছি। যেকোনও বাধা পেরতে রাজি আছি। সকলকে ধন্যবাদ।" ইতিমধ্যেই এলিয়টের প্রশংসায় পঞ্চুমখ হিউ জ্যাকম্যান, এলেন ডিজেনারস সহ একাধিক হলিউড তারকা।