আইনি জট থেকে কিছুটা রেহাই পেলেন সলমন খান। কৃষ্ণসার হরিণ হত্যাকাণ্ডে ভুয়ো অ্যাফিডেভিট দেওয়ার জন্য এবার অভিযুক্ত হয়েছিলেন সল্লু ভাই। অবশেষে যোধপুর কোর্ট সেই অভিযোগ তুলে নিল।  

১৯৯৮ সালে কৃষ্ণসার হরিন মারায় অভিযুক্ত হয়েছিলেন সলমন। কোর্টে এর পরে সলমন বলেছিলেন যে পিস্তল দিয়ে হরিণ শিকার করেছিলেন তার লাইসেন্স হারিয়ে ফেলেছেন। কিন্তু আসলে তিনি সেই  সময়ে লাইসেন্স রিনিউ করতে পাঠিয়েছিলেন।

এএনআই এই ঘটনায় আজ টুইট করে, কোর্টে ভুয়ো অ্যাফিডএভিট প্রদান করার অভিযোগ থেকে মুক্তি দিল যোধপুর কোর্ট। যদিও সেই অস্ত্রের লাইসেন্স তখন রিনিউ করতে পাঠিয়েছিলন সলমন। সলমনের আইনজীবী জানান, কোর্টে ভুয়ো তথ্য দেওয়ার কোনও অভিরপ্রায় ছিল না তাঁর। 

 

 

সলমনের আইনজীবী হস্তিমল সরস্বত জানিয়েছেন, কৃষ্ণসার হরিন শিকার কাণ্ডে সলমন কোনও ভুল তথ্য পেশ করেননি। 

প্রসঙ্গত, ১৯৯৮ সালে অক্টোবকে যোধপুরে কঙ্কনি গ্রামে দুটি কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা করেন সলমন খান। সে সময়ে ওখানে হাম সাত সাথ হ্যায় ছবির শ্য়ুটিং চলছিল।