বিতর্কিত মন্তব্য করার জন্য বার বার খবরের শিরোনামে উঠে আসেন অভিনেত্রী পায়েল রোহতগি। এবার রাজা রামমোহন রায়কে 'ব্রিটিশদের চামচা' বলে জোর তীব্র নিন্দার মুখে পড়লেন পায়েল। 

শুধু তাই-ই নয়। পায়েলের মন্তব্য শুনে মনে হয়েছে তিনি সতীদাহ প্রথার সুখ্যাতি করছেন। পায়েল বলেছেন, "ব্রিটিশরা হিন্দু ধর্মকে আঘাত করার জন্য রাজা রামমোহনকে ব্যবহার করেছিল।" 

এমনকী, রামমোহনকে 'বিশ্বাসঘাতক' ও 'দেশদ্রোহী' বলতে পর্যন্ত ছাড়লেন না পায়েল। আর এই মন্তব্যের পর থেকেই টুইটার জুড়ে ঝড় চলছে। 

টুইটারে তাঁর এই মন্তব্যকে সমালোচনা করতে এলে তিনি নিজের পক্ষে যুক্তি দিতে গিয়ে বারংবার রামমোহন রায় সম্পর্কে অপমানজনক কথা বলতে থাকেন। এমনকী সতীদাহ প্রথা সম্পর্কে ভিডিও করে ফিরিস্তি দেন পায়েল। তিনি দাবি করেন, "কখনওই কারও উপরে জোর করে সতীদাহ প্রথা চাপিয়ে দেওয়া হয়নি। মুঘলদের থেকে হিন্দু নারীদের সতীত্ব রক্ষা করার জন্য সতী দাহ প্রথার প্রচলন ছিল, যা নিজের ইচ্ছেয় মহিলারা মানতেন।" এই প্রসঙ্গে আলাউদ্দিন খলজির প্রসঙ্গও টেনে আনেন পায়েল। 

গত কয়েকদিন ধরে সতীদাহ প্রথা ও রামমোহন সম্পর্কে এমন সব মন্তব্য করেন পায়েল, তাতে ক্ষুব্ধ হন বহু মানুষ। বাক স্বাধীনতার অপব্যবহারেরও অভিযোগ ওঠে পায়েলের বিরুদ্ধে। 

এখানেই শেষ করেননি পায়েল রোহতগি। নিজেকে গর্বিত হিন্দু বলে সম্বোধন করেন পায়েল। এর আগেও দাবি করেছিলেন, দিল্লির খান মার্কেটের নাম বদলে তা বাল্মিকী মার্কেট করে দেওয়া হোক।