পুজোকে পাখির চোখ করেই একের পর এক ছবি তৈরির পরিকল্পণা আগেভাবে সেরে ফেলেছেন পরিচালকেরা। বলিউড থেকে টলিউড। বিগবাজেটের ছবির রেষারেষিতে পড়ে নাজে হাল অবস্থা বাংলার পরিচালকের। জাতীয় পুরষ্কার প্রাপ্ত পরিচালক প্রদীপ্ত ঘোষের বাকিটা ব্যক্তিগত ছবি দেখার জন্য একসময় ছিল উপচে পড়া ভীড়। কিন্তু বর্তমানে চাপের মুখে পড়তে হয় তাঁর আগামী ছবি রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত-কে।

আরও পড়ুনঃ কৃষ্ণকলি-কে ছাপিয়ে গেল ত্রিনয়নী, জেনে নিন টিআরপি-র তালিকায় কার দৌড় কতদূর

২০ই সেপ্টেম্বর প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল এই ছবির। কিন্তু হাজারও চেষ্টার পরও মিলল না প্রেক্ষাগৃহ। যা মিলল তা কলকাতার বাইরে। ফলে নিরুপায় হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ার দ্বারস্ত হন তিনি। সমস্ত ঘটনা লিখে জানান। এক প্রকার প্রতিবাদের ঝড়ও ওঠে। কিন্তু সুরাহা মেলেনি এখানে। বরং নিতে হয় নয়া চ্যালেঞ্জ।

আরও পড়ুনঃ ছোট পর্দার পরে এবার বড় পর্দায় মুক্তিপেল ঠাকুরমার ঝুলির গল্প 'বুদ্ধু ভূতুম'

মাল্টিপ্লেক্স প্রোগ্রামিং হেট পরিচালকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তাঁকে হল দেওয়া হবে মাত্র চার দিনের জন্য আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাবে এই ছবি। কিন্তু তাতে যদি প্রেক্ষাগৃহ অর্ধেকের বেশি ভরে তবেই চলবে এই ছবি, নয়তো তুলে দেওয়া হবে হল থেকে। একের পর এক ছবি মুক্তির অপেক্ষায়। বলিউডে বিগ বাজেটের ছবি ওয়ার, টলিউডের গুমনামী, মিতিন মাসি প্রমুখ। বর্তমানেও চলছে পরিণীতার দাপট। সঙ্গে মুক্তি পেয়েছে ১৭ই সেপ্টেম্বর, গোয়েন্দ জুনিয়ার। ফলে নিরুপায় হয়েই সোশ্যাল মিডিয়ায় সবটা খুলে জানান পরিচালক। ছবিতে মুখ্য ভুমিকায় অভিনয় করতে দেখা যাবে ঋত্বিক চক্রবর্তীকে। 

বৃস্পতিবার ঘটনর বিবরণ দিয়ে প্রদীপ্ত ভট্টাচার্য্য লেখেন- 'গতকাল থেকে অনেক কিছু ঘটল... গতকাল ফেসবুকে পোস্ট করার পর অসংখ্য মানুষ প্রতিবাদ জানান এবং এখনো জানাচ্ছেন... গতরাত্রে আমাকে একটি মাল্টিপ্লেক্স চেনের প্রোগ্রামিং হেড ফোন করেন এবং বলেন আমরা যদি আগামী 27 তারিখ রিলিজ করি তাহলে আমরা কলকাতার বিভিন্ন মাল্টিপ্লেক্সে (অবনী মল, যশোর রোড, সাউথ সিটি, হাইল্যান্ড পার্ক, সিটি সেন্টার ওয়ান, টু, লেক মল, মধ্যমগ্রাম ষ্টার মল ) প্রাইম টাইমে শো পাবো... সকালে ভদ্রলোকের সাথে দেখা করি... উনি সামনাসামনিও একই কথা বলেন... একটি সমস্যার কথাও বলেন যে প্রথম চার দিনের মধ্যে যদি প্রতিটা শোতে 50% এর বেশি ভিড় না হয় তাহলে পাঁচ দিনের মধ্যেই, পুজোর সপ্তাহে ছবি উঠে যাবে কারণ ঐ সময় একটি বিরাট হিন্দি ছবি আসছে এবং আরও বিভিন্ন বাংলা ছবি রিলিজ আগে থেকেই ঠিক করা আছে... আজকে এতক্ষন অবধি আমারা টিম মিটিং করে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছি আমরা 27(সেপ্টেম্বর ) তারিখেই ছবি রিলিজ করবো... গতকাল অবধি আমাদের কলকাতা শহরে কোনো সিনেমাহল ছিলো না... এক দিনের ব্যবধানেই পরিস্থিতির পরিবর্তন ঘটেছে... এই ঘটনা আপনাদের জন্যই সম্ভব হল, যাঁরা আমাকে ফোন করেছেন, লিখেছেন, ফেসবুকে লিখেছেন, রেগে গিয়েছেন, উতলা হয়েছেন, দুঃখ পেয়েছেন, সবাইকে আমাদের তরফে অনেক ভালোবাসা এবং অন্তর থেকে শ্রদ্ধা রইলো... আপনাদের প্রতিক্রিয়ায় আমরা অভিভূত... গতরাত থেকে আমরা কেউই ঘুমোইনি... গতকাল থেকে আজ এই সময় অবধি আমি একটা কথাই ভালো করে বুঝেছি আমাদের ছবি যদি প্রথম চার দিনের মধ্যে না দেখেন তাহলে আর বড় পর্দায় দেখতে পাবেন না... এই সঙ্গে এটাও বলে রাখি বাংলা ছবির অবস্থা খুব একটা ভালো নয়... আবার বলি ছবি রিলিজ পিছিয়ে 27 সেপ্টেম্বর হচ্ছে এবং যাঁরা ছবিটা দেখতে চান প্রথম চার দিনেই দেখে নিন... আপনাদের জন্যই আমরা এতদূর এগোতে পারলাম... ছবির যদি জোর থাকে ছবিটাও আশা করি চার দিনের বেশি হলে থাকবে... আপনারাই 'রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত'র একমাত্র ভরসা...'