সোশ্যাল মিডিয়ায় এর আগেও বেশ কয়েকবার সরব হয়েছেন স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। এবার গ্রিন অ্যাপল প্রোডাকশন নামের একটি প্রযোজনা সংস্থার উপরে রাগে ফেটে পড়লেন অভিনেত্রী। সংস্থার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার ও চরম অসহযোগিতার অভিযোগ এনেছেন অভিনেত্রী। পুরো ঘটনাটাই ফেসবুকে তুলে ধরলেন স্বস্তিকা। 

স্বস্তিকা এই এই প্রযোজনা সংস্থার ওয়েবসিরিজ স্টোনম্যানস ডায়েরি-তে কাজ করছিলেন। এই ওয়েবসিরিজটি হইচই-তে দেখানোর কথা। কলকাতায় পুরো শ্য়ুটিং শেষ হয়েছে। বাকি শ্যুটিং হবে উত্তরাখণ্ডে। এই শ্যুটিং হওয়ার কথা ছিল ১৮ ও ১৯ জুন। 

ঘটনার সূত্রপাত হয় স্বস্তিকার মেক আপ ও হেয়ার আর্টিস্টদের গিল্ড কার্ড না থাকা নিয়ে। মেক আপ ও হেয়ার আর্টিস্ট প্রসেনজিৎ বন্দ্যোপাধ্যাও নীতা মল্লিকের যে গিল্ড কার্ড নেই,  সে কথা স্বস্তিকা জানান প্রযোজনা সংস্থাকে। গিল্ড কার্ড না থাকায় কলকাতার বাইরে গিয়ে তাঁদের কাজ করতে অসুবিধা  হবে,এ কথা সংস্থার এক্সিকিউটিভ প্রোডিউসার (ইপি) সৌরভ বন্দ্যোপাধ্যায়কেও জানান স্বস্তিকা। পুরো কথাবার্তার স্ক্রিনশট ফেসবুকে শেয়ার করেন স্বস্তিকা। 

 

 

স্বস্তিকার অভিযোগ, সমস্যা মেটানোর নামে গিল্ডের কাছে মিথ্যে কথা বলার পরামর্শ দেয় ওই প্রযোজনা সংস্থা। এমনকী সৌরভ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, তাঁর শাসক দলের সঙ্গে ভাল বোঝা পড়া রয়েছে, তাই কোনও সমস্যা হবে না। এভাবেই গিল্ডের থেকে অনুমতি জোগাড়  করার আশ্বাস দেন সৌরভ। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কোনও ব্যবস্থা করতে পারেননি তিনি। তখন স্বস্তিকা সাফ জানান, গিল্ডের অনুমতি মিললে তবেই তিনি মেক আপ ও হেয়ার আর্টিস্ট সহ শ্যুটিং-এ যাবেন। 

স্বস্তিকার ম্যানেজার প্রযোজনা সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করলে জানান, গিল্ড কার্ড আছে এমন মেক আপ ও হেয়ার আর্টিস্টই শুধু যেতে পারবেন। তখনই স্বস্তিকা জানিয়ে দেন নিজের মেক আপ ও হেয়ার আর্টিস্ট ছাড়া তিনি যাবেন না। তখন নাকি স্বস্তিকার অজান্তেই তাঁর বডি ডাবল নিয়ে কাজ করছিল প্রযোজনা সংস্থা। তবে এখানেই শেষ নয়। গিল্ডের বিরুদ্ধেও উষ্মা প্রকাশ  করেছেন স্বস্তিকা।