'চিত্ত যেথা ভয় শূন্য উচ্চ যেথা শির'। রবি ঠাকুরের লেখা ভারতের স্বাধীনতার আগের একটি বিখ্যাত কবিতা। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর মানেই বাঙালির প্রথম প্রেম। রবি ঠাকুরের গানেই ভুলে রয়েছে গোটা বিশ্বভুবন। আর এই রবি ঠাকুরকে নিয়ে বাঙালির একটা নস্টালজিয়াও কাজ করে বটেই। স্বনামধন্য কবির জীবনীল যদি রূপোলি পর্দায় আসত তবে কি না ভাল হতো। এটা হয়তো অনেকেই ভেবে থাকেন। আর এবার এই ভাবনাই সত্যি হতে চলেছে। অবাক হচ্ছেন তো। এবাক হলেও এটাই সত্যি। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জীবনী এবার আসতে চলেছে বড়পর্দায়। 

আরও পড়ুন-জন্মদিনের পার্টিতে সটান চুম্বন পরিচালক বিরসাকে, ভাইরাল হল মিমির ছবি...

পরিচালক বিধু বিনোদ চোপড়া রবি ঠাকুরের জীবনীকে পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে চান  রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জীবন নিয়ে প্রত্যেকেই অবগত। কিন্তু পরিচালক চান রবিঠাকুরকে নিয়ে রিসার্চ করে এমন একজনকে। আর তিনি যদি কোনও পরিচালক হন তাহলে তা উপরি পাওনা।  ঋত্বিক ঘটকের কাছেই হাতে খড়ি পরিচালকের। কিন্তু বিশ্বকবিকে নিয়ে প্রবল আগ্রহ রয়েছে জানার। চিত্রনাট্যের প্রথম ড্রাফ্ট পেলেই তিনি তৈরি করবেন রবি ঠাকুরের জীবনী। সম্প্রতি দীর্ঘ ১১ বছর ধরে রিসার্চ করে তিনি তৈরি করছেন 'শিকারা' ছবিটি। কাশ্মীরি পন্ডিতদের নিয়েই তিনি তৈরি করেছেন এই ছবি ।ছবির প্রধান চরিত্রে নতুন দুই অভিনেতা অভিনেত্রীকে দেখা যাবে আদিল খান, এবং সাদিয়াকে। 

 

ছবির ট্যাগ লাইনও যথেষ্ঠ নজর কেড়েছে। শিকারাঃ'দ্য আনটোল্ড স্টোরি অব কাশ্মীরি পন্ডিতস'-এর ট্রেলারেই  ৩০ বছর আগের স্মৃতি উসকে দিয়েছেন পরিচালক। নয়ের দশক। জ্বলছে পুরো কাশ্মীর। যখন তখন যা কিছু হতে পারে। এই অবস্থার মধ্যে বাস্তুহারা করা হচ্ছে কাশ্মীরি পন্ডিতদের। আর এই প্রেক্ষাপটের মধ্যেই কাশ্মীরি যুগলের ভালবাসা গল্পই ফুটিয়ে তুলবে শিকারা। ১৯৯০ সালে কাশ্মীরি পন্ডিতদের ঘর ছাড়ার ঘটনায় তুলে ধরা হয়েছে ছবিতে। আজকের প্রেক্ষাপটে ভীষনই প্রাসঙ্গিক এই ঘটনাটিই ট্রেলারে ফুটে উঠেছে। আবহসঙ্গীতের দায়িত্বে রয়েছেন এ আর রহমান। ইতিমধ্যেই ছবিটি দর্শকদের প্রশংসা কুড়িয়েছে।