উৎসব মানেই খাওয়া-দাওয়া, আর ডিসেম্বর মানেই উৎসবের সময়। তাই এই সময় উৎসবের মেজাজে জমিয়ে ভুড়িভোজ করতে পাতে রাখতে পারেন বিরিয়ানি, ফ্রায়েড রাইসের পাশাপাশি অন্যতম জনপ্রিয় আরেকটি পদ হল এই তেহারি। মটন বা চিকেন আপনি যেটা পছন্দ করেন তা দিয়েই বানিয়ে নিতে পারেন এই পোলাও। উপকরণেও লাগে ঘরে থাকা মশলা। আজকের এই ব্যস্ত জীবনযাত্রায় চটপট যদি এমন সুস্বাদু খাওয়ার বানিয়ে নেওয়া যায় তবে খাওয়াটা দারুন জমে যায়। তবে দেরি না করে দেখে নেওয়া যাক খুব সহজে বানানো যায় এই পদ। ঘরোয়া জিনিসপত্র দিয়েই আপনি বানিয়ে নিতে পারবেন এই পদ। অবশ্যই বানিয়ে দেখুন সহজ এই রেসিপি। জেনে নেওয়া যাক এই রেসিপি বানানোর পদ্ধতি। 

আরও পড়ুন- শীতকালের পুষ্টিকর মিষ্টিমুখ, রইল গাজরের হালুয়া তৈরির সবচেয়ে সহজ রেসিপি

মটন কিমার দম পোলাও বানাতে লাগবে-

দেরাদুন রাইস – ৪০০ গ্রাম
মটন কিমা – ২৫০ গ্রাম
পেঁয়াজ কুচি – ১টা 
আদাবাটা – ২ চা চামচ
রসুনবাটা – ১ চা চামচ
গোটা গরমমশলা – ২ চা চামচ
জায়ফল গুড়ো – ১/২ চা চামচ
জয়িত্রী গুড়ো – ১/২ চা চামচ
গোলমরিচ গুড়ো – ১/২ চা চামচ
কিসমিস – ১ টেবিল চামচ
চিনি – ১ চা চামচ
ঘি – ৬ টেবিল চামচ
দুধ – ১০০ মিলি
জল – ৬০০ মিলি
লবন স্বাদ মতন
সাদা তেল – ২ টেবিল চামচ


যে ভাবে বানাবেন-

১) রান্নার আধ ঘন্টা আগে চাল ভিজিয়ে রাখুন। এরপর জল ঝড়িয়ে চাল ঝড়ঝড়ে করে রাখুন।
২) এরপর কুকারে কিমা, জল, নুন, গোলমরিচ গুড়ো, আদা রসুন বাটা ও জায়ফল-জয়িত্রী গুড়ো দিয়ে ২টো সিটি দিয়ে নামিয়ে নিন। 
৩) ঠান্ডা হলে প্রেসার কুকার খুলে কিমা ও জল ছেঁকে নিন। 
৪) এরপর একটা বড় প্যান গরম করে তাতে ঘি ও সাদা তেল দিন। 
৫) ঘি গরম হলে পেঁয়াজ কুঁচি ও গোটা গরম মশলা দিয়ে বেশ সোনালি করে ভেজে নিন। 
৬) পেঁয়াজ ভাজা হলে সেদ্ধ করে রাখা কিমা দিয়ে আরোও কিছুক্ষণ ভাজুন। 
৭) এইবার ওই কিমার মধ্যেই চাল দিয়ে আরও দু’মিনিট ভেজে নিন। 
৮) সব ভাজা হলে প্যানের মধ্যে দুধ, চিনি, কিসমিস ও কিমা সেদ্ধ জল দিয়ে ঢাকা দিয়ে মাঝারি আঁচে রান্না করুন। মাঝে মাঝে নেড়ে দেবেন। 
৯) জল শুকিয়ে এলে ঢাকা দিয়ে গ্যাস বন্ধ করে মিনিট ২০ দমে রাখুন। 
১০) ২০ মিনিট পরে ঢাকা খুলে ভালো করে নেড়ে দিন। 
১১) এবার সার্ভিং ডিসে ঢেলে সার্ভ করুন মটন কিমার দম পোলাও।