একটি ফুটবল ম্যাচে কোনও দল বিপক্ষকে ১০ গোল দিয়েছে খুব একটা বড় বিষয় নয়। মাঝে মধ্যেই ঘটে এমন ঘটনা। কিন্তু কোনও দলের গোলকিপার ১০ গোল খাওয়ার পরও, জিতে নিয়ে গেলেন ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার। তা অবশ্যই বিরল। কী শুনে অবাক হলেন? এমনই তাজ্জব ঘটনা ঘটেছে রাশিয়ান প্রিমিয়ার লিগা ফুটবলে। পরাজিত দলের গোলকিপার ১০ গোল হজম করেও ম্যাচ সেরার পুরস্কার হাতে বাড়ি ফিরলেন। যেই খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই সোরগোল পড়ে গিয়েছে। ভাইইরাল হয়েছে সেই গোলকিপারের অনন্য কৃতিত্ব। 

আরও পড়ুনঃঅবশেষে নিজের অবসর নেওয়ার কারণ জানালেন যুবরাজ সিং

করোনা আবহেই রাশিয়ায় শুরু হয়েছে ফুটবল লিগ। বুধবার ম্য়াচের আগে রাশিয়ান প্রিমিয়ার লিগের দল  রোস্তভের ছয় ফুটবলারের করোনা ভাইরাস রিপোর্ট পজেটিভ আসে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে আইসোলেশনে পাঠানো হয় সেই ছয় ফুটবলারকে। দুদিন পর সোচির বিরুদ্ধে ম্যাচ। দলের প্রধান ৬ ফুটবলার না থাকায় ম্যাত স্থগিত রাখার আবেদন জানানো হয় রোস্তভ ক্লাবের কর্তৃপক্ষের তরফে।  কিন্তু সোচি ক্লাব কর্তৃপক্ষ তাঁর অনুরোধ রাখেনি। বাধ্য হয়ে ম্যাচে রোস্তভ  অ্যাকাডেমির তরুণ ফুটবলারদের মাঠে নামায়। নজির স্থাপন করে রোস্তভের প্রতিটি প্লেয়ারের অভিষেক হয় ম্যাচে। তবে সোঁচির মত কঠিন দল ও অভিজ্ঞ ফুটবলারদের সামনে দাঁড়াতে পারেননি রোস্তভের তরুণ ব্রিগেড। 

 

 

আরও পড়ুনঃঅবস্থান বদল বিসিসিআইয়ের, আইপিএলে চিনা স্পনসর নিয়ে বৈঠকে গভর্নিং কাউন্সিল

আরও পড়ুনঃআইপিএলে বাতিল করতে হবে সমস্ত চিনা স্পনসর, বিসিসিআইকে হুঁশিয়ারী বণিকসভার

১০-১ গোলে ম্য়াচ জিতে নেয় সোঁচি। রোস্তভের গোলকিপার ডেনিশ পোপভ যেন চোখে সরষে ফুল দেখছিলেন। ১৭ বছর বয়সী ওই গোলকিপার ১০ টি গোল খেলেও, একাধিক দুরন্ত সেভ করেন। মোট ৪১ শট নিয়েছিলেন সোঁচির ফুটবলাররায যার মধ্যে একটি পেনাল্টি সহ ১০ গোল হজম করতে হয়েছিল ডেনিশ পোপভকে। একটি পেনাল্টি সেভও করেন পোপভ। এছাড়া অজস্র সেভ না করলে ম্যাচের ব্যবধান বিশ্ব রেকর্ড ছুঁয়ে পেলতে পারত। ১০টি গোল খেলেও গোটা ম্যাচে যেন ঝড় সামলেছেন ডেনিশ পোপভ। আর তাই তাঁকেই ম্যাচের সেরা বেছে নেওয়া হয়েছে। তরুণ প্লোরদের পারফরমেন্সে খুসি রোস্তভ ক্লাব কর্তৃপক্ষ। একইসঙ্গে ১০ গোল খেয়েও ম্যাচের সেরা হওয়ার অনন্য নজির গড়লেন ডেনিশ পোপভ।