দেশের পয়লা নম্বর ডিফেন্ডার সন্দেশ ঝিঙ্গানকে পেতে একেবারে টাকার থলি নিয়ে উপস্থিত হয়েছিল কলকাতার দুই প্রধান সহ আইএসএলের আরও কয়েকটা ফ্র্যাঞ্চাইজি। সন্দেশের এজেন্ট মারফত সন্দেশকে ২.১ কোটি টাকার বিশাল অফার দিয়েছিল এটিকে-মোহনবাগান। যা শুনে কার্যত পাকা কথা বলে ফেলেছিল এজেন্ট পক্ষ। কিন্তু হঠাৎই শোনা যায় এটিকে-মোহনবাগানের কর্তাদের কাছে আরও দুদিন সময় চেয়ে নিয়েছিলেন সন্দেশ।

এদিন মোহনবাগানে চুক্তি করার কথা থাকলেও কেন করেননি সন্দেশ! বুধবার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বললেন সেই নিয়েই প্রশ্ন শুরু হয়। জানা গিয়েছে, বিদেশের ক্লাবের জন্য এখনো পুরোপুরি আশা ছাড়েননি সন্দেশ। বিদেশের ক্লাব সন্দেশের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে আরও কয়েকদিন সময় নিচ্ছে। যার ফলে সোমবারই সবুজ মেরুন ব্রিগেডে সই করতে নারাজ ছিলেন তিনি। বুধবার পর্যন্ত যদি বিদেশের ক্লাব কোনও চূড়ান্ত খবর না দেয় তাহলে এটিকে-মোহনবাগানেই সই করবেন তিনি এমন কথাও দিয়েছিলেন বলে কানাঘুষো শোনা গেছে। আজ সেই দু দিনের সময়সীমা শেষ হচ্ছে। কাল কি করবেন সন্দেশ সেই নিয়ে জল্পনা অব্যহত। 

দীর্ঘসময় ধরে এটিকে-মোহনবাগানের নজরে থাকলেও ইনভেস্টর নিশ্চিত হওয়ার পর শেষ মুহুর্তে বাজি মারতে প্রায় ২ কোটি টাকার দর হাঁকিয়েছিল ইস্টবেঙ্গলও। কিন্তু সন্দেশ চেয়েছিলেন এমন একটি দলের সঙ্গে যুক্ত হতে যাদের একটি সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা আছে। সেদিক দিয়ে দেখতে গেলে ইস্টবেঙ্গল এখনও কোচ পর্যন্ত চূড়ান্ত করতে পারেননি। এফসি গোয়ার সাথে কথাবার্তা হলেও টাকার অঙ্ক নিয়ে শেষ অবধি মুখ ফিরিয়ে নেন সন্দেশ। এরপর মনে করাই যায় এটিকে মোহনবাগান ছাড়া অন্য কোনও ভারতীয় ক্লাবে তার যাওয়ার সম্ভাবনা কম। কলকাতার দলের হয়ে এএফসি কাপে ভালো পারফরম্যান্সে করে বিদেশি দলের নজরে পড়ারও সুযোগ পাবেন তিনি।