করোনা ভাইরাসের জেরে বিশ্ব জুড়ে স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল ফুটবল। আক্রান্ত হয়েছেন একাধিক ফুটবল ব্যক্তিত্ব। করোনা কেড়েছে ফুটবলের সঙ্গে যুক্ত কাধিক ব্যক্তির প্রাণও। প্রায় তিন মাস বন্ধ থাকার পর ধীরে ধীরে ফের শুরু হয়েছে ফুটবল লিগগুলি। তবে তা একাধিক নয়া নিময়কানুনকে অবলম্বন করে। এই পরিস্থিতিতে এবার পরোক্ষভাবে করোনা ভাইরাস থাবা বসালো ফুটবলের বার্ষিক সবচেয়ে বড় পুরস্কার ব্যালন ডিঅর-এর উপর। ২০২০ সালে করোনা ভাইরাসের কারণে ব্যালন ডিওর দেওয়া হবে না বলে ঘোষণা করল ফরাসি ফুটবল সংস্থা।

আরও পড়ুনঃএশিয়ান গেমসে তাস খেলে জিতেছিলেন সোনা, এবার অর্জুন পুরস্কারের জন্য মনোনীত হলেন দুই বঙ্গ সন্তান

প্রতি বছরের সেরা ফুটবলারদের এই শিরোপা দেওয়া হয়ে থাকে। ১৯৫৬ সালে প্রথম শুরু হয় ব্যালন ডিঅর। প্রথম বছর পরুস্কার পয়েছিলেন স্ট্যানলি ম্যাথিউস। সব থেকে বেশি ৬ ব্যালন ডিঅর জিতে রেকর্ড সৃষ্টি করেছেন বার্সেলোনা ও আর্জেন্টিনার তারকা প্লেয়ার লিওনেল মেসি। পর্তুগীজ তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো এই পুরস্কার পেয়েছেন ৫ বার। কিন্তু ১৯৫৬ সালের পর থেকে কোনওবার এই পুরস্কার প্রদান স্থগিত রাখা বা বাতিল ঘোষণা করা হয়নি। ব্যালন ডিঅর-এর ইতিহাসে এই প্রথমবার ২০২০ সালে করোনা ভাইরাস মহামারীর কারণে তা না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কর্তৃপক্ষের তরফে।

আরও পড়ুনঃইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজ দিয়েই মাঠে ফিরছে অস্ট্রেলিয়া, জেনে নিন সিরিজের ক্রীড়াসূচি

আরও পড়ুনঃচিনে নিন বিশ্বের সব থেকে সেক্সিয়েস্ট ফুটবল রেফারিদের, যাদের রূপ ঝড় তোলে হৃদয়ে

মার্চের শেষে সারা বিশ্বে করোনার প্রকোপের জেরে ফুটবল লিগ বন্ধ হয় যায়। এখন অবশ্য ধীরে ধীরে শুরু হয়েছে খেলা। স্থগিত হয়ে যায় চ্যাম্পিয়নস লিগের খেলাও। অগস্টে নয়া ফরমাটে তা আবার শুরু হওয়ার কথা। এই রকম নানান বাধা বিপত্তির মধ্যেই ব্যালন ডিওর না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন উদ্যোক্তারা। কারণ সবাই ঠিক ভাবে নিজেদের মুন্সিয়ানা দেখানোর সুযোগ পাননি এই করোনা বিধ্বস্ত বছরে। এছাড়া সব জায়গায় উপযুক্ত পরিস্থিতি ছিল না, সেই কারণে এই পুরস্কার দেওয়া যাচ্ছে না। গত দশক ধরে মেসি ও রোনাল্ডোর মধ্যেই ভাগাভাগি হয়েছে এই মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কার। তবে এবছর সেই তালিকায় এগিয়ে ছিলেন রবার্ট লেওনডস্কি ও করিম বেঞ্জিমা।